নিউ ফেসবুক একাউন্ট | কি উপকারিতা এবং বিপর্যয়?
#

নিউ ফেসবুক একাউন্ট | কি উপকারিতা এবং বিপর্যয়?

Ahmed Parbes
অনেকে আছেন যারা নিউ ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করার চিন্তাধারা করছেন।

তবে আপনি যখন নিউ ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা চিন্তাধারা করবেন তখন আপনাকে অবশ্যই কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে।

কারণ আপনি যখন নিউ ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চাইবেন তখন হয়তো আপনার ফেসবুক সম্পর্কে তেমন একটা ধারণা নাও থাকতে পারে, এখানে কি ঘটে বা কি হতে পারে আপনার?
নিউ ফেসবুক একাউন্ট | কি উপকারিতা এবং বিপর্যয়?

তবে আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই জেনে নিতে পারবেন নিউ ফেইসবুক একাউন্ট খোলার আগে আপনাকে যে পদক্ষেপগুলো নিতে হবে সেই সম্পর্কে

প্রথমে নিউ ফেইসবুক একাউন্ট কিভাবে তৈরি করবেন এটা সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক?

তবে  নিউ ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা যতটা সহজ এবং এই সম্পর্কে বর্ণনা করার যে কোন প্রয়োজনে নেই তা সবাই জানে। কারণ এই বিশ্বে এরকম কেউ নেই যে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারে না।

তাই আপনি যদি নতুন ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান তাহলে মূলত নিচের দেয়া লিঙ্কে ভিজিট করতে হবে।


উপরুক্ত লিংকে ভিজিট করার পরে আপনাকে step-by-step আপনার নাম, ইমেইল এড্রেস, কিংবা ফোন নাম্বার এবং তারপর একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড দিয়ে আইডি তৈরি করে নিতে হবে।

এবং আপনার ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করার জন্য অবশ্যই আপনাকে একটি কনফার্মেশন মেসেজ চলে যাওয়া কোড নাম্বারটি দিয়ে তা করতে হবে। 

আপনি যখন একটি নিউ ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিবেন তখন আপনাকে যে বিষয়গুলো অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে তা হলো।

▪ কেন তৈরি করছেন এটি?
▪ এতে আপনার কি উপকার হবে?
▪ আপনি আসক্ত হবেন কিনা?
▪ কত সময় এটি ব্যবহার করবেন?
▪ কিভাবে এর সঠিক ব্যবহার করবেন?

তাহলে এখন উপরে দেয়া প্রত্যেকটি শরট ক্লিপ কে আর একটু বর্ণনা সহকারে আপনাদের মধ্যে উপস্থাপন করা যাক।

কেন তৈরি করছেন এটি?


আপনি নিশ্চয়ই ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করার আগে এটা পুনর্বিবেচনা করে নিবেন যে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করার আগে আপনার উদ্দেশ্য টা আসলে কি? 

আপনি কি কারনে এই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান? এবং এই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করার ফলে আপনার কি ধরনের উপকার হতে পারে।

এটা মূলত আমরা প্রথমত তৈরি করে থাকি কিছুটা বিনোদনের আশায় কিংবা অন্য যে কোনো ধরনের একটি উদ্দেশ্যে।

আপনি যখনই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চাইবেন তখন আপনাকে অবশ্যই এই সম্পর্কে পুরোপুরি জ্ঞান আহরণ করতে হবে, আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা কিংবা ফেসবুকে বিচরণ করার উদ্দেশ্য টা আসলে কি? 

এতে আপনার কি উপকার হবে?


বর্তমান সময়ে শিক্ষাব্যবস্থার অনেকটা ফেসবুক নির্ভর হয়ে পড়েছে। অর্থাৎ আপনি যখনই ফেসবুকে ভিজিট করবেন তখন হয়তো বিভিন্ন ধরনের শিক্ষামূলক পেজ কিংবা গ্রুপ থেকে আপনার পছন্দের লেকচার শুনে নিতে পারেন।

কিংবা অনেক উপকারী ভাইয়েরা/ বোনেরা রয়েছেন যারা বিভিন্ন সময়ে তাদের ফেসবুক পেইজে কিংবা আইডিতে যেকোন  একটি কনসেপ্ট নিয়ে লাইভে চলে আসেন।

এবং আপনার সমস্যার সমাধান দিয়ে থাকেন, এতে করে আপনার ব্যক্তিজীবন কিংবা শিক্ষাজীবনে থাকা সমস্যাগুলো সমাধান পেয়ে আপনি অবশ্যই খুশিতে আত্মহারা হয়ে যান।

তবে ফেসবুক ব্যবহারে শুধু যে উপকারিতা রয়েছে তা কিন্তু নয় এতে অপকারিতাও বিদ্যমান রয়েছে।

আর আপনাকে অবশ্যই ফেসবুক ব্যবহার করার আগে এর উপকারিতা এবং অপকারিতা গুলো বিবেচনায় আনতে হবে।

এছাড়াও এই ফেসবুক একাউন্ট আপনার কি ধরনের উপকারে আসতে পারে সেই বিষয়টিও পর্যালোচনা করতে হবে।

আপনি আসক্ত হবেন কিনা?


যেকোনো একটি প্লাটফ্রম আপনি যখন খুব বেশি পরিমাণে ব্যবহার করবেন এবং এটিকে আপনার জীবনের একটি অংশ হিসেবে বেছে নিবেন, তখনই আপনি এতে আসক্ত হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে। 

বিশেষ করে ফেসবুক বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় সোসিয়াল গণমাধ্যম হওয়ার কারণে এতে প্রায় বিলিয়ন কিংবা তার চেয়েও অধিক অ্যাক্টিভ ইউজার থাকে। 

এবং আপনি এই ফেসবুকের সাথে নিজেকে আসক্ত করে নেয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি থাকে।

এখানে আপনি প্রায়ই বিভিন্ন ধরনের লোক সমাগম দেখবেন, যাদেরকে আপনার জীবনে একটি অংশ করে নিবেন ফলশ্রুতিতে আপনি এখানে অবশ্যই আসক্ত হয়ে পড়বেন। এবং এটি আপনার জীবনে এক মারাত্মক পরিণতি ডেকে আনতে পারে।

তাই আপনি যাতে ফেসবুকে আসক্ত না হন, এইসব বিষয়টিকে আগে নিশ্চিত হতে হবে এবং অবশ্যই টাইম মেনটেন করে ফেসবুক ব্যবহার করতে হবে।

কত সময় এটি ব্যবহার করবেন?


আপনি আপনার ফেসবুক আইডিতে কত সময় বিচরণ করবেন কিংবা এটি কত সময় ব্যবহার করলে এই ফেইসবুক এর দ্বারা আপনার জীবনে কোন ধরনের খারাপ প্রভাব লক্ষণীয় হবে না সেটি আপনাকেই বেছে নিতে হবে।

কারণ ফেসবুক ব্যবহারে যে শুধুমাত্র উপকারিতা রয়েছে তা কিন্তু নয় উপকারিতা এর সংখ্যা থেকে অপকারিতা সংখ্যা এই ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি বিরাজমান।

তাই আপনাকে অবশ্যই একটি টাইম মেনটেন করে ফেসবুক ব্যবহার করতে হবে ,যাতে করে এটি আপনার জীবনের কোনো বিরূপ প্রভাব বয়ে নিয়ে না আসে।

কিভাবে এর সঠিক ব্যবহার করবেন?


ফেসবুক বলেন কিংবা ইন্টারনেটের জগতে যে কোন কিছুই বলেন নাই কেন এর দ্বারা আপনি কতটা উপকার পাবেন সেটি মূলত নির্ভর করে আপনি এটি কিভাবে ব্যবহার করবেন তার উপরে।

আপনি যদি যে কোন প্ল্যাটফর্ম এর সঠিক ব্যবহার করেন তাহলে আপনি অবশ্যই এটা থেকে উপকারিতা বেশি পাবেন।

আর যদি আপনি এর বহুল ব্যবহার করেন তাহলে অপকারিতা সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে এবং এটি আপনার ব্যক্তি জীবনের ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনতে পারে।

নিউ ফেসবুক একাউন্ট এর সঠিক ব্যবহারের জন্য আপনাকে অবশ্যই যে বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে তা হলো গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এটি ব্যবহার না করা, আপনার জীবনের সবটুকু এতে না দেয়া, এবং সবশেষে আসক্তের দিকটি বিবেচনায় রাখা।

এছাড়াও আপনি এখানে কতক্ষণ বিচরণ করছেন তার হিসাব অবশ্যই রাখবেন এবং এটি যেনো কোন রকমের আপনার সময় ক্ষেপণের কারণ না হয় তার দিকেও খেয়াল রাখলে আপনি এটি সঠিক দোয়া করতে পারবেন।

মূলত নিউ ফেসবুক একাউন্ট তৈরি করা কিংবা এই সংক্রান্ত বিষয়গুলো জন্য আপনাকে অবশ্যই উপরে উল্লেখিত পন্থাগুলো অনুসরণ করতে হবে।

কারণ যারা নিউ ফেইসবুক একাউন্ট তৈরি করতে চান তারা মূলত প্রথমত এই বিষয়গুলো সম্পর্কে ধারনা নাও থাকতে পারে।