Banglalink Free Net | সারা জীবনের জন্য ব্যবহার করুন Free net |


ফ্রী বিষয়গুলো আসলে আমাদের সকলের কাছে অন্যরকম আনন্দের একটি বিষয়। 

আপনি যে কোন কিছুর মূল্য দিয়ে ব্যবহার করাতে যতটা না ভালবাসবেন, তার চেয়েও কয়েক হাজার গুণ বেশি ভালোবাসবেন যখন আপনি এটা একদম ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন।

ঠিক এরকম ভাবে আপনি যদি ইন্টারনেটে বিচরণ করেন তাহলে হয়তো আপনারা সবাই অনেক টাকার মেগাবাইট খরচ করে তারপর এখানে বিচরণ করতে হয়, যা আমাদের অর্থের অপচয় অনেকাংশে বাড়িয়ে দেয়।

শুধু তাই নয় আপনি প্রতিদিন ইন্টারনেটের খরচ বাবদ অনেকগুলো টাকা পরিশোধ করতে বিরক্ত বোধ করে একসময় ইন্টারনেটের বিচরণ করা বন্ধ করে দেন।

তবে আপনি চাইলে বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন ধরনের সিম অপারেটর ব্যবহার করে ফ্রী নেট ব্যবহার করতে পারবেন যাতে আপনার কোন টাকা খরচ হবে না।

ঠিক একই রকম ভাবে বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় সিম অপারেটর হলো বাংলালিংক

আর আপনি যে বাংলালিংক সিম অপারেটরের ব্যবহারকারী হন,তাহলে আপনি Banglalink Free Net খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন।

আপনি যদি বাংলালিংক ফ্রি নেট ব্যবহার করতে চান তাহলে আজকের এই পোস্টটি একদম শেষ পর্যন্ত ফলো করুন, তাহলে আপনি আজীবন আপনার বাংলালিংক সিমে ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন।

আপনি যদি আপনার বাংলালিনক সিমে ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার করতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে যে বিষয়গুলোর প্রতি লক্ষ রাখতে হবে সেগুলো হলো।

▪  ব্রাউজিং করার সময় আপনার সিমে কোন টাকা রাখবেন না।
▪ অবশ্যই আপনার অ্যাকাউন্টের মেয়াদ থাকতে হবে।
▪ একটি ভাল ব্রাউজার থাকতে।

Banglalink Free Net এর মাধ্যমে আপনি যা যা ব্যবহার করতে পারবেন: 


আপনি যদি আজকের এই পোস্টটি ফলো করে বাংলালিংক সিমে ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তাহলে আপনি যে সমস্ত সুযোগ-সুবিধা ভোগ করবেন সেগুলো হলো।

▪ ইউটিউবে যে কোন ভিডিও দেখতে পারবেন।
▪ আপনার পছন্দের বিষয়গুলো ডাউনলোড করতে পারবেন।
▪ ইচ্ছামত যে কোন ওয়েব সাইটে ব্রাউজ করতে পারবেন।

Banglalink Free Net কিভাবে ব্যবহার করবেন? 


বাংলালিংকে ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার করতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে নিচের দেয়া লিঙ্কে ভিজিট করতে হবে এটা আপনি একদম ফ্রিতে করতে পারবেন।


আপনি যখনই উপরোক্ত লিংকে প্রবেশ করবেন তখন আপনি নিম্নোক্ত স্ক্রীনশটএর মত একটি পেইজ দেখতে পারবেন।

 এই পেজের উপরের দিকে আপনি অনেকগুলো অপশন এর মধ্যে থেকে সার্চ বার নামক একটি অপশন পাবেন।

এই সার্চ বার ব্যবহার করে আপনি আপনার পছন্দের যেকোন বিষয়বস্তুর খুব সহজেই আপনার হাতের নাগালে পেয়ে যেতে পারেন।

Banglalink Free Net | সারা জীবনের জন্য ব্যবহার করুন Free net |


এছাড়াও আপনি এই ওয়েবসাইটে যখন প্রবেশ করবেন তখন উপরের দিকে ইউটিউব সহ নানা ধরনের গুরুত্বপূর্ণ ভিডিও প্ল্যাটফর্মের লিংক সহজে পেয়ে যাবেন।

আপনাকে শুধুমাত্র যে কোন একটি প্লাটফর্মের ওপর ক্লিক করতে হবে এবং তারপর এখান থেকে যেকোন ভিডিও ডাউনলোড আপলোড সহ যেকোন কাজে লিপ্ত হতে হবে।

বলাবাহুল্য আপনি এখান থেকে ভিডিও একদম বিনামূল্যে উপভোগ করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনি যদি ইউটিউবে ভিডিও দেখতে চান তাহলে ইউটিউব সিলেক্ট করুন এবং তারপরেই আপনি দেখতে পারবেন যেটি যথাযথভাবে কাজ করছে এবং ইউটিউব এ থাকা সমস্ত ভিডিও গুলো আপনার সামনে শো করছে।

এবং এখান থেকে আপনি আপনার পছন্দের যেকোন ভিডিও ওপেন করে তারপরে ইচ্ছা করলে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

Banglalink Free Net | সারা জীবনের জন্য ব্যবহার করুন Free net |


আপনি যদি আপনার যেকোন পছন্দের গান কিংবা ভিডিও ডাউনলোড করতে চান তাহলে আপনি একদম সিম্পল একটি প্রসেস ফলো করার মাধ্যমে থাকতে পারবেন।

এক্ষেত্রে প্রথমে আপনাকে যে বিষয়টি ডাউনলোড করতে হবে তা নিশ্চিত হতে হবে, এবং তারপরে আপনি যখনই এটা ডাউনলোড করতে চাইবেন তখন আপনি এর নিচে ডাউনলোড লিঙ্ক পেয়ে যাবেন।

ডাউনলোড করার জন্য শুধুমাত্র আপনাকে Tap Download নামের অপশনটির উপরে ক্লিক করতে হবে এবং তারপরে Download Original File বাটনের উপর ক্লিক করে ডাউনলোড নিশ্চিত করতে হবে।

Banglalink Free Net | সারা জীবনের জন্য ব্যবহার করুন Free net |


আর মূলত এভাবেই আপনি যেকোন ধরনের পছন্দের ভিডিও কিংবা গান কতবার ইউটিউবে লাইভ স্ট্রিমিং আপনি এই ফ্রী ওয়েবসাইট এর সহযোগিতায় দেখতে পারবেন।

আপনি যদি সবচেয়ে কার্যকরী উপায় Banglalink Free Net ব্যবহার করতে চান তাহলে উপরে উল্লেখিত পদ্ধতি ফলো করুন এবং 100 ভাগ কার্যকরী উপায় বাংলালিংকে ফ্রি নেট ব্যবহার করুন।

How to Get Emergency Balance in Teletalk |


আপনার টেলিটক সিমের ব্যাালান্স যদি শেষ হয়ে যায়
এবং সিমে আবার রিচার্জ করে নেয়ার মত কোন সমাধান আপনার হাতে যদি বাকি না থাকে তাহলে আপনি খুব সহজেই টেলিটক সিমের অপারেটরের কাছ থেকে ব্যালেন্স লোন নিতে পারেন থাকে সাধারণত টেলিটক ইমারজেন্সি ব্যালেন্স বলা হয়। 

এই পদ্ধতিতে এরকম যে আপনি যদি টেলিটক সিমের কাছ থেকে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেন এবং তাদের কাছ থেকে বঞ্চিত ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর হিসাব সমীকরণ যতটুকু হবে আপনার পরবর্তী রিচার্জের ঠিক ততটাই কেটে নেয়া হবে।

আপনি যদি টেলিটক সিমের কাছ থেকে 10 টাকা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেন আর টাকা ৮ খরচ করে ফেলেন তাহলে আপনার পরবর্তী রিচার্জের পরিমাণ থেকে ৮ টাকা কেটে নেয়া হবে।

আর আপনি যদি টেলিটক সিমের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে চান তাহলে কয়েকটি উপায় আপনার নির্দিষ্ট এমাউন্টের মধ্যে টেলিটক সিমে ব্যালেন্স নিয়ে নিতে পারবেন।

How to Get Emergency Balance in Teletalk?


▪ 10 টাকা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার জন্য ডায়াল করুন *1122# , বলাবাহুল্য এতে আপনার কোন টাকা চার্জ হবে না।

▪ 12 টাকা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার জন্য ডায়াল করুন *1122*12#

▪ 20 টাকা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার জন্য ডায়াল করুন *1122*20#

▪ 30 টাকা লোন নেওয়ার জন্য ডায়াল করুন *1122*30#

▪ 50 টাকা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার জন্য ডায়াল করুন *1122*50#

আর উপরে উল্লেখিত যে সমস্ত কোড গুলো বর্ণনা করা হয়েছে সেই সমস্ত কোডগুলো আপনার ফোনে ডায়াল করার মাধ্যমে আপনার টেলিটক সিমের জন্য ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: উপরে উল্লেখিত তথ্যগুলো টাকার লোন আপনি আপনার সিমে নিয়ে আসবেন এবং এতে খরচ কৃত টাকার পরিমাণ আপনার পরবর্তী রিচার্জ থেকে কেটে নেওয়া হবে।

এছাড়াও সময়অনুযায়ী টেলিটক সিম অপারেটর  এই কোডগুলো পরিবর্তন কিংবা টাকার পরিমাণ কমবেশি হতে পারে, এরকম পরিলক্ষিত হলে টেলিটক অপারেটরের কাস্টমার কেয়ারের সাথে কথা বলুন।

How to Get Emergency Balance in Teletalk? 


আপনি যদি এই সমস্ত কোড ডায়াল করা ছাড়াই সহজ পদ্ধতিতে টেলিটক সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স রিচার্জ করতে চান তাহলে আপনি চাইলে তাদের অফিসিয়াল অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডাউনলোড করে নিতে পারেন।


অ্যাপসটি ডাউনলোড করা হয়ে গেলে তাতে প্রবেশ করার মাধ্যমে আপনি শুধুমাত্র ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেয় এছাড়াও আরো নানা ধরণের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

বলা বাহুল্য যে আপনি এই অ্যাপসটি সহযোগিতায় খুব সহজেই আপনার সিমের জন্য ইমারজেন্সি ব্যালেন্স ক্রয় করতে পারবেন যা আপনার পরবর্তী রিচার্জ থেকে কেটে নেওয়া হবে।

Robi Emergency Balance 2020| Emergency Balance Robi |


আপনি যদি রবি সিম ব্যবহারকারী হন এবং আপনার যেকোন সংকটময় সময়ে আপনার ফোনের ব্যালেন্স শেষ হয়ে যায় তাহলে আপনি খুব সহজেই রবি সিম থেকে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবেন।

বিষয়টা এরকম যে যখন আপনার রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স আনার প্রয়োজন পড়বে তখন আপনি কয়েকটি প্রসেস ফলো করার মাধ্যমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিয়ে আসবেন।

এবং যখন আপনার সিমে আবার রিচার্জ করা হবে তখন আপনার নিয়ে আসা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স গুলো তারা নিয়ে নিবে।

Robi Emergency Balance আপনি কত টাকা অব্দি নিতে পারবেন? এছাড়াও আপনি এই টাকাগুলো কত দিন মেয়াদ এর সাথে পাবেন এ সংক্রান্ত নানা ধরনের জটিলতার সম্মুখীন আমরা প্রায় সবই হয়।

আপনি যদি Robi Emergency Balance নিতে চান তাহলে আপনি সর্বোচ্চ 100 টাকা অব্দি আপনার রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবেন। 

আর রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার জন্য আপনাকে নিম্নলিখিত পদক্ষেপ অনুসরণ করতে হবে।

Emergency Balance Robi পাওয়ার জন্য শর্ত:


Emergency Balance Robi  হওয়ার জন্য অবশ্যই আপনাকে নিম্নলিখিত শর্তের থেকে আওতাধীন হতে হবে অন্যথায় আপনি কখনোই রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাবেন না।

▪ আপনাকে অবশ্যই রবি সিম ব্যবহারকারী হতে হবে।

▪ আপনি সর্বোচ্চ 100 টাকা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবেন।

▪ আপনি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার জন্য প্রযোজ্য কিনা এটা দেখার জন্য ডায়াল করুন *8#, এক্ষেত্রে আপনি প্রযোজ্য হলে ইমার্জেন্সি পাওয়ার জন্য ডায়াল করতে পারেন *123*007# অথবা নিচে বর্ণিত আরেকটি পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন।

▪ এই অফারে আপনি সাধারণত 12 টাকা থেকে 100 টাকা নিতে পারবেন।

Robi Emergency Balance কিভাবে নিবেন? 


আপনি যদি রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমে তাদের কাছে বিনামূল্যে এসএমএস প্রেরণ করতে হয়, যার মাধ্যমে আপনি তাদেরকে এটা নিশ্চিত করেন যে আপনি আসলেই রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে চান।

ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার জন্য আপনি প্রথমে আপনার ফোনের মেসেজ অপশনে চলে যান এবং তারপর টাইপ করুন START এবং পাঠিয়ে দিন 8811 এই নাম্বারে।

এছাড়াও আপনি যদি এই অফারটি বন্ধ করতে চান তাহলে পূর্বের মতো আবারও মেসেজ অপশনে গিয়ে STOP লিখে সেন্ড করুন 8811 এই নাম্বারে।

আপনি যখনই উপরে উল্লেখিত উপায়ে তাদের কাছে মেসেজ সেন্ড করবেন তখন আপনি ফিরতি মেসেজে এটা নিশ্চিত হয়ে যাবেন যে আপনি আসলেই রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেয়েছেন কিনা।

আপনি চাইলে আপনার রবি সিমের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স চেক করার জন্য ডায়াল করতে পারেন *222*16#। 

আর মূলত উপরোল্লেখিত উপায়ে আপনি খুব সহজেই Emergency Balance Robi  নিতে পারেন, শুধু একটি উপায় আপনি এই কাজটি করতে সক্ষম হবেন তা কিন্তু নয়। 

আপনি চাইলে নিম্নলিখিত আরেকটি উপায় খুব সহজেই কোন ধরনের কোডিংয়  ছাড়াই আপনার রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারেন।

Emergency Balance Robi  অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস এর সহযোগিতায়ঃ


আপনি যদি একদম সহজেই একটি মাত্র ক্লিক এর দ্বারা আপনার রবি সিমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে মাই রবি অ্যাপস টি ডাউনলোড করে নিতে।


অ্যাপটি ডাউনলোড করা হয়ে গেলে বিভিন্ন ধরনের ইনফর্মেশন অর্থাৎ আপনার ফোন নাম্বার দিয়ে অ্যাপসটিতে লগইন করে নিতে হবে।

লগইন করা হয়ে গেলে আপনি এই অ্যাপসটি ড্যাশবোর্ডে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার অপশন পেয়ে যাবেন এবং এতে ক্লিক করার মাধ্যমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারবেন।

Robi Emergency Balance 2020|  Emergency Balance Robi |

আর উপরে উল্লিখিত দুটি উপায়ে আপনি খুব সহজেই Robi Emergency Balance নিতে পারবেন।তবে আমার মতে কোড ডায়াল করা ছাড়াই ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার জন্য আপনি চাইলে মাই রবি অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন এটাই সবচেয়ে ভালো হবে।

Gp Balance Transfer | Grameenphone Money Transfer|


আপনি যদি গ্রামীনফোন সিম ইউজার হন এবং আপনার সিমে যদি খুব বেশি পরিমাণ টাকা থাকে এবং এই টাকাগুলো যদি আপনি আপনার প্রিয়জনের সাথে শেয়ার করতে চান অর্থাৎ আপনি Gp Balance Transfer করতে চান তাহলে আপনাকে একটি সহজ প্রসেস মান্য করতে হয় ।

তবে পূর্ব সময়ে আপনি যদি Gp Balance Transfer করতে চাইতেন তখন আপনাকে বিভিন্ন ধরনের জটিলতার সম্মুখীন হতে হতো।

বিষয়টা এরকম যে আপনি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার সময় যখন আপনি আপনার সিমটি রেজিস্ট্রেশন করতে চাইতেন, তখন নানা ধরনের জটিলতার সম্মুখীন হতে হতো। অনেক সময় দেখা যায় করার কারণে রেজিস্ট্রেশন হচ্ছে না।

তবে চিন্তার কোন কারণ নেই আজকের এই পোস্টটিতে আমি Gp Balance Transfer এর সময়উপযোগী এবং সবচেয়ে কার্যকরী দুটি প্রসেস সম্পর্কে আলোচনা করব যা অবশ্যই আপনার কাজে আসবে।

যেকোনো ফোন দিয়ে Gp Balance Transfer :


আপনি যদি যেকোনো ধরনের ডিভাইস দ্বারা গ্রামীণফোন সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমত আপনার সিমের নাম্বারটি রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হয়। 

যা আমরা সাধারণত যে কোন ধরনের ফ্লেক্সিলোডের দোকানে গেলে দেখতে পারি।

এক্ষেত্রে তারা প্রথমে তাদের সিম থেকে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য রেজিষ্ট্রেশন করে নেয়, এবং তারপরে সহজ একটি পদ্ধতি অবলম্বনের মাধ্যমে যেকোনো সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের কাজ সম্পাদন করতে পারে।

আপনিও যদি এরকম Gp Balance Transfer করতে চান এবং আপনার সিম রেজিস্ট্রেশন করে নিতে চান তাহলে নীচে দেয়া পদক্ষেপ অনুযায়ী কাজটি সম্পাদন করুন।

রেজিস্ট্রেশন করতে হলে প্রথমে আপনার ফোনের মেসেজ অপশনে যান এবং তারপরে টাইপ করুন REGI এবং সেন্ড করে দিন 1000 নাম্বারে, তাহলে আপনার সিমটি ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবে।

এবং আপনি যে ফিরতি মেসেজ পাবেন এর মাধ্যমে আপনার পিন নাম্বার সহ যাবতীয় ডিটেলস গুলো পেয়ে যাবেন।

ব্যালেন্স ট্রান্সফার কিভাবে করবেন?


আপনি যদি রেজিস্ট্রেশন এর কাজ কি কমপ্লিট করে ফেলেন, তাহলে এবার Gp Balance Transfer এর কাজটি সম্পাদন করতে হবে। 

প্রথমে মেসেজ অপশনে চলে যান এবং তারপরে BTR এরপরে স্পেস দিন আপনার পিন নাম্বার স্পেস যে মোবাইল নাম্বারে টাকা পাঠাতে চান সেই নাম্বার স্পেস কত টাকা পাঠাতে চান তার হিসাব এবং তার পরে পাঠিয়ে দিন 1000 নাম্বারে।

উপরে উল্লেখিত প্রসেস না বুঝে উঠতে পারলে নিচের দেয়া সহজ মাধ্যম ব্যবহার করতে পারেন আপনি নিচে দেয়া ডেমো দেখে নিতে পারেন।

BTR(space)****(PIN)(space)0171***(mb no)(space)100(amount)

আপনি যখন উপরুক্ত উপায় ব্যালান্স ট্রান্সফার করবেন, তখন আপনি  সফল হয়ে গেলে একটি কনফারমেশন মেসেজ পাবেন। 

যার মাধ্যমে আপনি নিশ্চিত হতে পারবেন যে আপনি যে নাম্বারে টাকা প্রেরণ করেছেন সে নাম্বারে টাকা প্রবেশ করেছে কিনা।

কিভাবে পিন নাম্বার পরিবর্তন করবেন?


আপনি যদি আপনার ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার পিন নাম্বার পরিবর্তন করতে চান তাহলে প্রথমে মেসেজ অপশনে চলে যান।


এবং তারপর CPIN লিখে স্পেস দিয়ে তারপরে আপনার পূর্বে যে পিন নাম্বার রয়েছে সেই পিন নাম্বার দিন এরপরে লিখুন NEWPIN আবারো স্পেস দিন এরপরে আপনি যে নতুন পিন নাম্বার দিতে চান সেটি দিন সবশেষে পাঠিয়ে দিন 1000 নাম্বারে।

CPIN (space) OLDPIN (space) NEWPIN (space) NEWPIN.

Example: CPIN 1234 4321 4321

আর উপরে উল্লেখিত উপায়ে আপনি খুব সহজেই ব্যালেন্স ট্রান্সফারের এর জন্য আপনার পিন নাম্বার পরিবর্তন করতে পারবেন।

আর এভাবেই মূলত যেকোনো ধরনের ফোন ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি  Gp Balance Transfer এর কাজ সফলভাবে সম্পাদন করতে পারবেন

বিকল্প আরেকটি সহজ পদ্ধতিতে  Grameenphone Money Transfer :


আপনি চাইলে ইন্টারনেট কানেকশন এর সাথে একটি সহজ পদ্ধতি অবলম্বন করার মাধ্যমে  Grameenphone Money Transfer সফলভাবে করতে পারবেন।

এজন্য প্রথমে আপনাকে প্রথমে গ্রামীনফোন সিমের দেয়া একটি ফ্রি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডাউনলোড করে নিতে হবে।


অ্যাপসটি ডাউনলোড করা হয়ে গেলে এবার আপনার ফোন নাম্বার দিয়ে লগ ইন করে নিন এবং তারপরে আপনি এই অ্যাপসটির হোমপেইজে চলে যেতে পারবেন।

অ্যাপসটিতে প্রবেশ করার পরে আপনি যে বক্সটিতে আপনার একাউন্টে যত টাকা রয়েছে তা দেখতে পারবেন তার উপরে ক্লিক করুন।

Gp Balance Transfer | Grameenphone Money Transfer|


তাহলে আপনি এর পরের পেইজে Transfer নামক একটি অপশন পেয়ে যাবেন এই অপশনটিতে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই যে কোন নাম্বারে টাকা রিচার্জ করে নিতে পারবেন।

Gp Balance Transfer | Grameenphone Money Transfer|


এর পরের পেজে আপনি যখন আসবেন তখন আপনাকে নিম্নলিখিত উপায়ে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের কাজ সম্পাদন করতে হবে।

Enter Recipient Number: এবক্সটিতে   আপনি যার কাছে টাকা প্রেরণ করতে চান সেই নাম্বারটি লিখে দিন।

Enter Amount: আপনি ওই নাম্বারটিতে কত টাকা পেমেন্ট করতে চান সেটি এখানে উল্লেখ করুন এবং মনে রাখবেন এই টাকার পরিমাণ কমপক্ষে 10 টাকা এবং সর্বোচ্চ 100 টাকা অবধি হলে হবে।

Enter Pin: এখানে আপনাকে আপনি পূর্বে উল্লেখিত উপায় যে পিন নাম্বার পেয়েছিলেন রেজিস্ট্রেশন করার মাধ্যমে সে পিন নাম্বার লিখতে হবে।

কিভাবে আপনি পিন নাম্বার করবেন তা আমি পোস্টের সর্বপ্রথমে উল্লেখ করেছি।

এবং উপরে উল্লেখিত প্রত্যেকটি পদ্ধতি অবলম্বন করার পরে সর্বশেষে আপনাকে Transfer  বাটনে ক্লিক করতে হবে, তাহলে সফলভাবে আপনি  Grameenphone Money Transferএর কাজ সম্পাদন করতে পারবেন। 

Gp Balance Transfer | Grameenphone Money Transfer|


আর মূলত এভাবেই আপনি খুব সহজেই জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারেন আশা করি পোস্টটি আপনার কাজে এসেছে অসংখ্য ধন্যবাদ সাথে থাকার জন্য। 

Gp to Skitto Balance Transfer |


আপনি যদি জিপি সিম ইউজার হন এবং আপনার এই জিপি সিম থেকে Gp to Skitto Balance Transfer করতে চান তাহলে আপনাকে যে পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে, তাই পোস্টটিতে আলোচনা করা হয়েছে।

এ কাজটি করতে হলে প্রথমে আপনাকে গ্রামীনফোন সিমের অফিশিয়াল অ্যাপসটি ডাউনলোড করে নিতে হবে যেটিকে আমরা মাই জিপি বলে চিনি।


অ্যাপসটি ডাউনলোড করা হয়ে গেলে এবার আপনাকে এতে প্রবেশ করতে হবে, এবং তার পরে কয়েকটি স্টেপ ফলো করার মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি gpGp to Skitto Balance Transfer করার কাজে লিপ্ত হতে পারবেন।

যখনই আপনি অ্যাপসটি ডাউনলোড করে নিবেন, তখন আপনাকে এতে আপনার ফোন নাম্বার দ্বারা লগইন করে নিতে হবে। তারপর আপনি এই অ্যাপসটি ড্যাশবোর্ডে চলে যেতে পারবেন।

আপনি যখনই এই অ্যাপসটি ড্যাশবোর্ডে চলে যাবেন, তখন আপনি এখানে আপনার গ্রামীণফোন সিমে থাকা বর্তমান ব্যালেন্স আপনি দেখতে পারবেন, আপনাকেই ব্যালেন্স এর উপরে ক্লিক করতে হবে।

Gp to Skitto Balance Transfer |

আপনি যখনই ব্যলান্স এর উপরে ক্লিক করবেন তখন আপনি আরেকটি নতুন পেইজ দেখতে পারবেন। 

এই পেজটিতে আপনি যে কাজটি করতে এসেছেন অর্থাৎ Gp to Skitto Balance Transfer transfer করার ক্ষেত্রে Transfer নামের অপশন টি পেয়ে যাবেন, এই অপশনটির উপরে ক্লিক করতে হবে।

Gp to Skitto Balance Transfer |


আপনি যখনই ট্রানস্ফার নামের অপশনটি উপরে ক্লিক করবেন তখন আপনি এখানে যে নাম্বারে টাকা প্রেরন করতে চান সেই নাম্বারটি এবং যত টাকা প্রেরন করতে চান তার নির্দিষ্ট অ্যামাউন্ট আর আপনার পিন নাম্বার দেয়ার মাধ্যমে সহজেই আপনি আপনার লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে পারেন।

Enter Recipient Number: এ বক্সটিতে  আপনি যার কাছে টাকা প্রেরণ করতে চান সেই নাম্বারটি লিখে দিন।

অর্থাৎ আপনি যেহেতু স্কিটো সিমে টাকা ট্রান্সফার করতে চান সে তো আপনাকে এখানে আপনার স্কিটো সিমের নাম্বারটি দিতে হবে।

Enter Amount: আপনি ওই নাম্বারটিতে কত টাকা পেমেন্ট করতে চান সেটি এখানে উল্লেখ করুন, এবং মনে রাখবেন এই টাকার পরিমাণ কমপক্ষে 10 টাকা এবং সর্বোচ্চ 100 টাকা অবধি হলে হবে।

এতেই কাজ শেষ নয়, আপনি চাইলে প্রতিদিন মাত্র 300 টাকা যে কোন নাম্বারে প্রেরন করতে পারবেন। 

অর্থাৎ আপনি যদি Gp to Skitto Balance Transfer করতে চান তাহলে প্রতিদিন আপনি এই নাম্বারে 100 টাকা করে মোট তিনবার 300 টাকা প্রেরন করতে পারবেন।

Enter Pin: এখানে আপনি রেজিস্ট্রেশন করেছিলেন যে পিন নাম্বার দ্বারা সেই পিন নাম্বার দিতে হবে, আপনি যদি পূর্বে রেজিস্ট্রেশান না করে থাকেন তাহলে কিভাবে রেজিস্ট্রেশন করবেন তার একটি প্রসেস আমি আলোচনা করছি।

রেজিস্ট্রেশন করতে হলে প্রথমে আপনাকে আপনার ফোনের মেসেজ অপশনে চলে যেতে হবে এবং তারপরে REGI লিখে তারপরে 1000 নাম্বারে মেসেজ সেন্ড করে দিতে হবে।

REGI send to 1000 

আর এভাবে আপনি যখন রেজিষ্ট্রেশন করবেন তখন আপনি কনফার্মেশন মেসেজ এর মাধ্যমে আপনার পিন নাম্বার পেয়ে যাবেন,  আপনাকে ওই পিন নাম্বার এখানে দিতে হবে।

Gp to Skitto Balance Transfer |

এরপরে একদম সর্বশেষে আপনাকে Transfer নামক অপশনটিতে ক্লিক করার মাধ্যমে এই ব্যালেন্স ট্রান্সফারের কাজটি সম্পাদিত করতে হবে।

আর মূলত আপনি উপরে উল্লেখিত উপায় খুব সহজেই Gp to Skitto Balance Transfer করতে পারবেন।

Banglalink Online Service | দেখে নিন কতশত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে |

Banglalink Online Service | দেখে নিন কতশত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে |

বর্তমান সময়ে সবাই ইন্টারনেট কে প্রাধান্য দেয়ার কারণে এটা পরিলক্ষিত হয় যেকোনো সিমে তাদের কার্যক্রমকে ইন্টারনেট মুখী করে তুলেছে।

অর্থাৎ ব্যবহারকারীরা চাইলে ইন্টারনেট সংযোগের মাধ্যমে তাদের যেকোনো ধরনের সমস্যার কথা যেকোনো ধরনের অপারেটরের কাছে তুলে ধরতে পারে।

এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের তৃতীয় সর্ববৃহৎ অপারেটিং সিস্টেম অর্থাৎ বাংলালিংক সেবাগুলো কে অনলাইন ভিত্তিক করে তুলছে, একে সাধারণত বলা হয় Banglalink Online Service।

আপনি যদি Banglalink Online Service উপভোগ করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে প্রথমে বাংলালিংক এর অফিশিয়াল একটি ওয়েবসাইটের সহযোগিতা নিতে হবে।

Eselfcare

এক্ষেত্রে আপনি যখন লিংকটিতে প্রবেশ করবেন তখন আপনাকে একটি অ্যাকাউন্ট খুলে নিতে হবে, যা খোলার জন্য আপনাকে আপনার বাংলালিংক সিমের নাম্বার এবং ইমেইল এড্রেস দিতে হবে।

এবং তারপরে সমস্ত ইনফরমেশন দিয়ে আপনি যখন একটি নতুন অ্যাকাউন্ট খুলে ফেলবেন তখন আপনি  এতে  লগইন করতে পারবেন।

প্রথমবার রেজিস্ট্রেশন করলে আপনি এখান থেকে 100 এমবি বোনাস পাবেন যেগুলো আপনি যেকোন ধরনের কাজে লাগাতে পারবেন।

আপনি যদি নতুন অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান, তাহলে আপনাকে যে সমস্ত পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে তা হল নিচের স্ক্রীনশট এ দেয়া ডকুমেন্টগুলো ফিলাপ করতে হবে।

Name: এখানে আপনার একটি নাম দিতে হবে।

Email:  আপনি যেই ইমেল এড্রেস সর্বাধিক ব্যবহার করেন অর্থাৎ যে ইমেইল এর সাথে আপনি সার্বক্ষণিক একটি থাকে সেই ইমেইল এড্রেস সিলেক্ট করুন।

Phone number: এখানে আপনি আপনার যে বাংলালিংক সিমের জন্য এই সমস্ত banglalink online service উপভোগ করতে চান সেই সিমটা নাম্বার লিখে দিন।

Password: এই জায়গাতে আপনার অ্যাকাউন্টের জন্য একটি স্ট্রং পাসওয়ার্ড দিন পাসওয়ার্ডের ডেমো এরকমটা হতে পারে: Asnm123#@'

Confirm Password: এই জায়গাতে আপনি পূর্বে যে পাসওয়ার্ড দিয়ে ছিলেন অর্থাৎ এই বক্স এর উপরের বক্সে আপনি যে পাসওয়ার্ড দিয়েছিলেন সেটি আবার টাইপ করুন।

এবং সমস্ত ডকুমেন্টগুলো দেয়া হয়ে গেলে আবার Sign Up বাটনে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনার একাউন্ট খোলা নিশ্চিত করুন।

Banglalink Online Service | দেখে নিন কতশত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে |


নতুন একাউন্ট খোলার পর এবার আপনাকে যে সমস্ত সুযোগ সুবিধার আওতায় আনা হবে সেগুলো হলোঃ

আর এই সমস্ত সুযোগ-সুবিধা গুলোর মধ্যে অন্যতম কয়েকটি সুযোগ সুবিধা হল:

▪ আপনার সিমে রিচার্জ করতে পারবেন।

▪ আপনি কি কি ব্যবহার করেছেন সেই সমস্ত হিস্টরি গুলো দেখা।

▪ আপনি শেষ কখন আপনার বাংলালিনক সিমে কত টাকা রিচার্জ করেছিলেন সেই সমস্ত হিস্টরি দেখতে পারবেন।

▪ এছাড়াও আপনার সিম থেকে আপনি কার কার সাথে কথা বলেছিলেন অর্থাৎ আপনার কল হিস্টোরি দেখতে পারবেন।

▪ আপনার সিম এর সমস্ত ইনফরমেশন গুলো সম্পর্কে জানতে পারবেন।

▪ ইন্টারনেট অফার গুলো সম্পর্কে জানতে পারবেন।


আপনি যদি সহজেই এবং খুব স্বল্প সময়ে Banglalink Online Service  এর সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে চান তাহলে তাদের একটি অফিসিয়াল অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডাউনলোড করে নিতে হবে।

এই অ্যাপসটি ডাউনলোড করার পরে আপনি যদি আপনার নাম্বার দিয়ে লগইন করে নেন তাহলে আপনি এটা থেকে না মুখী সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন

আপনার সিমে রিচার্জঃ


আপনি চাইলে খুব সহজেই ঘরে বসেই যেকোনো ধরনের উৎসেচক এর সহযোগিতায় আপনার বাংলালিংক সিমে রিচার্জ করে নিতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনাকে এই সুযোগ সুবিধা ভোগ করার জন্য Banglalink Online Service  এ রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে।

বাংলালিংক কাস্টমার কেয়ারের সাথে অনলাইন লাইভ চ্যাটঃ


Banglalink Online Service এরমধ্যে অন্যতম একটি হলো আপনি চাইলে তাদের কাস্টমার কেয়ারের সাথে ইন্টারনেট ব্যবহার করার মাধ্যমে লাইভ চ্যাট করতে পারেন।

এই সুযোগ সুবিধা টি আপনিএই সুযোগ সুবিধা টি আপনি ভোগ করতে পারবেন যদি আপনি উপরে প্রসেস মত বাংলালিংক সিমের eselfcare ওয়েবসাইট কিংবা এন্ড্রয়েড এপ্স এ লগইন করেন তাহলে।

এক্ষেত্রে আপনি তাদের কাছে একদম লাইফ চ্যাটিংয়ের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের সমস্যার কথা তুলে ধরতে পারবেন।

Banglalink Online Service | দেখে নিন কতশত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে |

আর এভাবে আপনি চাইলে খুব সহজেই Banglalink Online Service এর আওতাধীন নিজেকে আনতে পারবেন এবং বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

বাংলালিংক কল লিস্ট চেকঃ


আপনি চাইলে এর মাধ্যমে খুব সহজে ইতিপূর্বে যা যার সাথে কথা বলেছিলেন এবং কত মিনিট কথা বলেছিলেন তার সঠিক লিস্ট পেয়ে যাবেন।

আপনি চাইলে খুব সহজেই আপনার কল লিস্ট চেক করতে পারবেন এতে করে আপনি নিশ্চিত হতে পারবেন,  যে আপনি কতক্ষণ কথা বলেছিলেন এবং কার কার সাথে ইতিপূর্বে যোগাযোগ রেখেছিলেন।

এছাড়াও আপনি এটা দেখতে পারবেন শেষ দশদিনের আপনি কার কার সাথে সবচেয়ে বেশি কথা বলেছিলেন এবং এজন্য আপনার কত টাকা খরচ হয়েছিল।

Banglalink Online Service | দেখে নিন কতশত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে |

আর তাই আপনি যদি আপনার কল লিস্ট চেক করতে চান তাহলে অবশ্যই Banglalink Online Service সহযোগিতা নিন।

ইন্টারনেট অফার গুলো সম্পর্কে জানাঃ


আপনি যদি Banglalink Online Service ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনার জন্য বাংলালিংক সিমে টাকা সর্বশেষ সুলভ মূল্যে ইন্টারনেট অফার সম্পর্কে আপনি খুব সহজেই জেনে নিতে পারবেন।

আর আপনাকে এই সমস্ত ইন্টারনেট অফারের খোঁজখবর নিতে হলে বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট এর সুযোগ সুবিধা নিতে হয়। 

আপনি শুধুমাত্র তাদের এই সেবার সাথে যুক্ত হলে আপনার সিমে থাকা সমস্ত ইন্টারনেট প্যাকেজ গুলো দেখতে পারবেন।

Banglalink Online Service | দেখে নিন কতশত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে |


রিচার্জ হিস্টরিঃ


আপনি আপনার বাংলালিংক সিমে পূর্বে কত টাকা রিচার্জ করেছিলেন তার সঠিক স্টরি আপনি এখানে দেখতে পারবেন। এতে করে আপনি নিশ্চিত হয়ে যাবেন যে এই সিমে রিচার্জের জন্য আপনার ঠিক কত টাকা খরচ হয়েছে।

এছাড়াও Banglalink Online Service এর আওতাধীন যে সমস্ত সুযোগ সুবিধা গুলো রয়েছে সেগুলো হলো।

▪ Roaming History
▪ Priyojon
▪ Amar Offer 

আর এই সমস্ত সুযোগ-সুবিধা ভোগ করার জন্য আপনাকে অবশ্যই banglalink online service এ রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে। 

যা আমি উপরে বর্ণনা করেছি যে কিভাবে আপনি রেজিস্ট্রেশন করবেন?

এই সমস্ত অনলাইন সার্ভিস এর মূল লক্ষ্য হলো এগুলোর মাধ্যমে আপনি চাইলে খুব সহজেই বাংলালিংক এর সাথে যেকোনো ধরনের কার্যক্রম সম্পাদন করতে পারবেন। 

Gp Sms Pack | সুলভ মূল্যে কিভাবে ক্রয় করবেন জিপি এসএমএস প্যাক |

Gp Sms Pack |  সুলভ মূল্যে কিভাবে ক্রয় করবেন জিপি এসএমএস প্যাক |

আপনার জিপি সিমের জন্য যদি আপনি Gp Sms Pack ক্রয় করতে চান এবং এটা একদম সুলভ মূল্যে করতে চান তাহলে আপনাকে হয়তো বিভিন্ন ধরনের ইউ এস ডি কোড এর দরকার হয়।

যেগুলো না হলে আপনি সুলভ মূল্যে জিপি এসএমএস ক্রয় ক্রয় করতে পারেন।

কিন্তু আপনি যদি Gp Sms Pack ক্রয় না করে কিছু টাকার পরিবর্তে কাউকে এসএমএস প্রেরণ করতে চান তাহলে জন্য আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে খুব বেশি পরিমাণ টাকা চার্জ হতে পারে।

শুধু তা নয় আপনি আপনার এসএমএস লেখার পরিসর যত বেশি বৃদ্ধি করবেন ঠিক তত বেশি টাকা আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে চলে যাবে। 

তবে আপনি যদি একদম সুলভ মূল্যে Gp Sms Pack ক্রয় করেন তাহলে আপনি যত বড়ই এসএমএস লিখেন না কেন আপনি যতগুলো এসএমএস করা করেছেন। 

সেই এসএমএস গুলো থেকে প্রতি এসএমএসের পরিধির উপর নির্ভর না করে আপনি যতটা এসএমএস প্রেরণ করবেন ঠিক ততটাই আপনার মোট এসএমএস প্যাকেজ এর পরিমাণ থেকে কমে যাবে। 

এছাড়াও অনেক সময় আপনি লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন যে আপনার ক্রয় কৃত প্রত্যেক এসএমএস এর দাম এক পয়সা হয়েছে মাত্র। 

যা পূর্বের চেয়ে অনেকটাই সুলভ মূল্যে আপনি আপনার প্রিয়জনের কাছে এসএমএস করেন করতে পেরেছেন।

এসমস্ত সুযোগ-সুবিধা ভোগ করার জন্য আপনাকে অবশ্যই জিপি এসএমএস প্যাকেজ গুলোকে ক্রয় করতে হয়।

▪ 100 এসএমএস 5 টাকা : *111*10*6#
▪ 25 এসএমএস 2 টাকা পেতে ডায়াল করুন *121*1015*2#
▪ 50 SMS 2 Tk “S3” Type to send 8426 1 day
▪ 100 SMS (GP-GP) 7টাকা *121*1015*1# ,4 দিনের জন্য 

উপরে উল্লেখিত এসএমএস প্যাকেজ গুলো যদি আপনার পছন্দমত না হয়, তাহলে আপনি চাইলে গ্রামীণফোনের কর্তিক আরো দুইটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তারা আপনার ইচ্ছামত আপনার পছন্দের মূল্যের মধ্যে Gp sms pack ক্রয় করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে প্রথমে যে অ্যাপসটি রয়েছে সেটি নিচের দেয়া লিঙ্ক থেকে ডাউনলোড করে নিনঃ

অ্যাপসটি ডাউনলোড করা হয়ে গেলে প্রথমে এতে আপনার গ্রামীনফোনের সিম নাম্বার দিয়ে লগইন করে নিন। 

এবং তারপরে আপনি যখন এই অ্যাপসটির ড্যাশবোর্ডে চলে যাবেন তখন আপনি এখানে অনেকগুলো অপশন দেখতে পারবেন এই অপশন গুলো থেকে আপনাকে flexiplan নামের যে অপশনটি রয়েছে,  তাতে ক্লিক করতে হবে।

Gp Sms Pack |  সুলভ মূল্যে কিভাবে ক্রয় করবেন জিপি এসএমএস প্যাক |


এরপরে আপনি আরেকটি পেজে চলে আসতে পারবেন যেখান থেকে আপনি আপনার পছন্দের যেকোন ধরনের প্যাকেজ ক্রয় করতে পারবেন। 

যেমন আপনি চাইলে ইন্টারনেট প্যাক, এসএমএস প্যাক, স্পেশাল কলরেট প্যাকেজ যেকোনো ধরনের প্যাকেজ আপনার পছন্দমত মেয়াদের সাথে ক্রয় করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে যখনই আপনি Flexiplan অপশনটিতে ক্লিক করবেন তখন আপনি নিচের পেইজে যখন আসবেন। 

তখন আপনাকে যেহেতু এসএমএস কিনতে হবে তাই এসএমএস নাম্বার অপশন থেকে আপনার যতগুলো এসএমএস প্রয়োজন ততগুলো সিলেক্ট করে নিন।

এবং তারপরে আপনি এই এসএমএস গুলো যতদিন মেয়াদের জন্য ক্রয় করতে চান তা সিলেক্ট করলে দেখতে পারবেন।

আপনার পছন্দমত বেছে নেওয়া এসএমএস গুলোর মূল্য কত টাকা পড়েছে এবং এতে আপনার কত পার্সেন্ট সেভিং হয়েছে।

সবকিছু যদি আপনার আয়ত্তের মধ্যে থাকে তাহলে Buy now অপশনটিতে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনার অফারটি নিশ্চিত করে নিন, অর্থাৎ ক্রয় করে নিন Gp Sms Pack।

Gp Sms Pack |  সুলভ মূল্যে কিভাবে ক্রয় করবেন জিপি এসএমএস প্যাক |


এছাড়াও আপনি চাইলে গ্রামীনফোন সিমের কাছ থেকে পাওয়া আরেকটি এন্ড্রয়েড এপস এর সহযোগিতায় খুব সহজে আপনার পছন্দমত Gp Sms Pack ক্রয় করতে পারবেন।

এপসটির সহযোগিতায় সহজেই এসএমএস প্যাকেজ করতে হলে, আপনাকে পূর্বের মতো মাই জিপি অ্যাপ এ ঢুকে প্লেক্সিপ্লান সিলেক্ট না করে ডাইরেক্ট অ্যাপসটি ডাউনলোড করে নিতে হবে।

ডাউনলোড করা হয়ে গেলে পূর্বের মতোই অ্যাপসটিতে আপনার নাম্বারে দিয়ে লগইন করে নিন, এবং তারপরে আপনার পছন্দমত প্যাকেজগুলো বেছে নিয়ে ক্রয় করে নিন।

আপনি যেহেতু এসএমএস প্যাক করে করতে চান সেহেতু আপনাকে শুধুমাত্র নির্দিষ্ট মেয়াদের সাথে এসএমএস প্যাকেজ গুলো কে সিলেক্ট করে নিতে হবে।

এবং উপরের দেয়া মিনিট এবং ইন্টারনেট প্যাকেজ গুলোকে একেবারে শূন্য করে দিতে হবে।

Gp Sms Pack |  সুলভ মূল্যে কিভাবে ক্রয় করবেন জিপি এসএমএস প্যাক |


আপনি যদি আপনার পছন্দের জিপি এসএমএস প্যাকেজ গুলো সিলেক্ট করে।

তারপর একটি নির্দিষ্ট মেয়াদের সাথে যথাযথভাবে নির্বাচন করার পর Buy now অপশনটিতে ক্লিক করার পর আপনার প্যাক থেকে কনফার্ম করে নিতে হবে।

আর এভাবেই আপনি চাইলে খুব সহজেই আপনার পছন্দমতো যেকোনো ধরনের Gp Sms Pack ক্রয় করতে পারবেন।