ফেসবুকে কেউ ব্লক দিলে তাকে আবার মেসেজ পাঠান খুব সহজেই|


আপনার কোন কার্যকলাপের কারণে অথবা আপনার উপর বিরক্ত বোধ করে কেউ যদি ফেসবুকে আপনাকে ব্লক করে দেয়, তাহলে কি আপনি তার কাছে কোন মেসেজ দিতে পারেন?

অবশ্যই না। কারণ এটি ফেসবুকে একটি গুরুত্বপূর্ণ সেবা, আপনার কথাই একবার খেয়াল করে দেখুন- যদি আপনি মেয়ে হয়ে থাকেন আর কেউ আপনাকে যদি বিরক্ত করে ফেসবুকে মেসেজ দেয়ার মাধ্যমে তাহলে আপনি কি চাইবেন?

আপনি নিশ্চয়ই ঐ সময়টাতে ঐ ব্যক্তিটি কে ব্লক করবেন, আর এই ব্লক করার একটি মাত্র উদ্দেশ্য থাকবে যাতে করে ওই ব্যক্তিটি আপনাকে আর বিরক্ত না করে।

আর এটাই হবে যখন আপনাকে কোন ব্যক্তি ব্লক করবে তখন আপনি ফেসবুকে ওই ব্যক্তিটি কে আর কখনোই কোন মেসেজ কিংবা তার স্ট্যাটাসে লাইক কমেন্ট করতে পারবেন না।

এটাই ফেসবুকের অপ্রিয় সত্য, তবে আপনি যদি তাদের রুলস কে টেকনিক্যাল এভোয়েড করতে চান তাহলে কিন্তু আপনি তা করতে সক্ষম হবেন।

এক্ষেত্রে আপনি এই টিপসটি যদি মেনে চলেন তাহলে যে কেউ ফেসবুকে আপনাকে ব্লক করলেও আপনার কিছু বন্ধুর সহযোগিতায় তাকে আপনি আবার মেসেজ করতে পারবেন।

কেউ যদি আপনাকে ব্লক করে দেয় এবং আপনি যদি থাকে আবার পুনরায় মেসেজ দিতে চান তাহলে আজকের এই পোস্টটি শুধুমাত্র আপনার জন্য।

এক্ষেত্রে যে ব্যক্তি আপনার আপনাকে ফেসবুকে ব্লক করবে ওই ব্যক্তি আপনার অন্যান্য ফ্রেন্ডসদের বন্ধু হতে হবে। তাহলেই আপনি তা করতে সক্ষম হবেন।

যখন ওই ব্যক্তি আপনার অন্যান্য ফ্রেন্ডসদের বন্ধু হবে তখন তারা যদি মেসেঞ্জারে চ্যাট গ্রুপ খুলে, এবং আপনাকে আর ঐ ব্যক্তিকে যুক্ত করে তাহলে আপনারা দুজনে কথা বলতে পারবেন।

এক্ষেত্রে অবশ্যই ব্যক্তি হিসেবে তিনজনের দরকার হবে, যেমন আপনাকে যে ব্লক করেছে ওই ব্যক্তি আপনি এবং তৃতীয় ব্যক্তি হিসেবে সেই যে একটি চ্যাট গ্রুপ খুলবে এবং আপনাদের দুজনকে অ্যাড করবে।

আর কিভাবে ফেসবুকে একটি চ্যাট গ্রুপ খুলতে হয় তা আসলে আমরা সকলেই কমবেশি জানি।


ফেসবুকে কেউ ব্লক দিলে তাকে আবার মেসেজ পাঠান খুব সহজেই|

এরপর এখান থেকে আপনি যতজন বন্ধুকে সিলেক্ট করবেন সেই সমস্ত বন্ধুরা আপনার ফেসবুকে চ্যাট গ্রুপে যুক্ত হয়ে যাবে।

এক্ষেত্রে যদি আপনাদের দুজনকে কেউ অ্যাড করে নেয় তাহলে আপনারা চাইলে আবার একজন আরেকজনের সাথে কনভার্সেশনে জড়াতে পারেন।

এভাবে ফেসবুকে যদি কেউ আপনাকে ব্লক করে দেয় তাহলে আপনি পুনরায় তার কাছে মেসেজ পাঠাতে পারবেন।

ফেসবুকের কিছু ম্যাজিক কোড তৈরি করুন আপনিও|

ফেসবুকের কিছু ম্যাজিক কোড তৈরি করুন আপনিও|

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা প্রতিনিয়ত ফেসবুকে ম্যাজিক কোড গুলো খুঁজে থাকেন, আপনিও কি তাদের মধ্যে একজন?

এই ম্যাজিক কোডগুলোর অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে থাকে, যার দ্বারা আপনার ফেসবুক স্ট্যাটাস কিংবা যেকোনো কিছু রং পরিবর্তন করতে পারেন অথবা অন্য কিছু।

তবে সত্য কথা এই যে আপনি যদি অন্য কোথাও থেকে ফেসবুক ম্যাজিক কোড গুলো কালেক্ট করে নেন,তাহলে কিন্তু এই কোড গুলো ঠিক ওই রকমই কাজ করবে যেভাবে এগুলো তৈরি করা হয়েছে।

এই কোড গুলো কে আপনি আপনার মনের মত করে কখনো ব্যবহার করতে পারবেন না, কিন্তু আমরা প্রতিনিয়ত এটা চাই যে আমরা যেনো আমাদের মনের মত করে কোড ব্যবহার করি।

অন্য কোথাও থেকে কালেক্ট করা কোড গুলো কে আপনি কখনো এডিট করতে পারবেন না, আর আপনি যদি কোগগুলোকে এডিট করতে না পারেন তাহলে নিশ্চয়ই আপনি আপনার মনের মত এই কোড গুলো কে ব্যবহার করতে পারবেন না।

কারন কোডগুলো আপনি যখন এডিট করতে চাইবেন তখন এর সংখ্যাকে পরিবর্তন করবেন, আর এই সংখ্যাগুলো পরিবর্তন করলে কখনোই এটি ফেসবুকে আর পূর্বের ন্যায় কাজ করবে না।

আর কোড গুলো আপনার মনের মত ব্যবহার করতে হলে কি করতে হবে জানেন? এজন্য অবশ্যই আপনাকে নতুন কোনো ম্যাজিক কোড তৈরি করতে হবে।

আর এটা একদম সহজ উপায় করতে পারবেন, আপনি যদি ফেইসবুক ম্যাজিক কোড তৈরি করতে চান তাহলে আজকের এই পোস্টটি শুধুমাত্র আপনার জন্য।

এক্ষেত্রে আপনাকে যেকোন একটি ব্রাউজারে আপনার ফেসবুক আইডি লগইন করতে হবে, এবং তারপরে এর মেনু বার থেকে সেলেক্ট করতে হবে Event নামক অপশনটি।
ফেসবুকের কিছু ম্যাজিক কোড তৈরি করুন আপনিও|

এবার আপনাকে একটি ইভেন্ট তৈরি করতে হবে, একটি কথা এখানে একেবারে ক্লিয়ার করা যাক ম্যাজিক কোড গুলো ঠিক সেভাবে তৈরি হবে, যেটা আপনি আপনার ফেসবুক ইভেন্টের নাম দিবেন।

আর তাই আপনি যেই নামের ম্যাজিক তৈরি করতে চান সেই নামটি আপনার ইভেন্ট নামের অংশে বসিয়ে দিন, যেমন আমি বাংলাদেশের নাম দিয়ে একটি কালার কোড তৈরি করতে চাই, তাই আমি ইভেন্টটির নাম দিলাম Bangladesh.


ফেসবুকের কিছু ম্যাজিক কোড তৈরি করুন আপনিও|

তাছাড়া আর বাকি কাজগুলো কিভাবে করবেন কিংবা একটি ইভেন্ট কিভাবে তৈরি করতে হয়, তা আমি আগের একটি টিউটোরিয়ালে সম্পূর্ণভাবে আলোচনা করেছি।
ইভেন্ট তৈরি করা হয়ে গেলে এবার আপনাকে এই ফেসবুক ইভেন্ট কে শেয়ার করতে হবে, এই ইভেন্ট কে শেয়ার করলে আপনি ম্যাজিক কোড পাবেন।

এক্ষেত্রে আপনাকে এই ব্রাউজারের ডান পাশে উপরে দেয়া 3 ডট ক্লিক করতে হবে, তাহলে আপনি পেয়ে যাবেন Share  নামক অপশন।


ফেসবুকের কিছু ম্যাজিক কোড তৈরি করুন আপনিও|


আর এটাতে আপনি যখন ক্লিক করবেন তখন আপনার চোখের সামনে ভেসে উঠবে এই ইভেন্টটি কে শেয়ার করার মত কয়েকটি প্লাটফর্মের নাম , আপনাকে ক্লিক করতে হবে Massage বাটন টি তে।

আর যখনই আপনি মেসেজে শেয়ার করতে চাইবেন তখনই এই কোড গুলো একদম উপরের দিকে আপনি আপনার ম্যাজিক কোডটি পেয়ে যাবেন।
ফেসবুকের কিছু ম্যাজিক কোড তৈরি করুন আপনিও|

https://m.facebook.com/events/1371690726349285

কালার করা কোডটি আপনাকে আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে স্ট্যাটাস হিসেবে পোস্ট করতে হবে, আর তাহলেই আপনি ম্যাজিক দেখতে পারবেন।

তবে এই কোডটি আপনার টাইমলাইনে এমনিতেই পাবলিশ করে দিন তাহলে কিন্তু এটি কাজ করবে না, এজন্য আপনাকে প্রথম এবং শেষে কিছু সিম্বল ব্যবহার করতে হবে।

@[1371690726349285:]

এবার এই কোডটি আপনি যখনই আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পাবলিশ করবেন, তখনই এটি ম্যাজিক কোড এর মত কাজ করবে।


ফেসবুকের কিছু ম্যাজিক কোড তৈরি করুন আপনিও|


আর আপনি এভাবে যতটি কোড  তৈরি করবেন প্রত্যেক ম্যাজিক কোড উপরে দেয়া প্রসেস এর মতো তৈরি করে, তারপর উপরের মত কাস্টমাইজ করে তা ফেসবুকে স্ট্যাটাস আকারে পাবলিশ করতে হবে।

ফেসবুক থেকে নাম্বার কিভাবে বের করবেন?

ফেসবুক থেকে নাম্বার কিভাবে বের করবেন?

ফেসবুকে যে কারো নাম্বার খুঁজে বের করতে চান? আর আপনি অন্যের ফেসবুক আইডির নাম্বার খুজে বের করতে হলে অনেক সময়ই হিমশিম খেয়ে যান।

ফেসবুকে ব্যবহার করা  গোপন নাম্বার আপনি আপনার নির্দিষ্ট কোনো কারণে খুঁজে বের করতে চান।

যেমন ওই ব্যক্তিটি হতে পারে আপনার গার্লফ্রেন্ড, কিংবা আপনার ফ্রেন্ডলিস্টের এমন কোনো গুরুত্বপূর্ণ একজন ব্যক্তি তার কাছে আপনি নাম্বার চাওয়ার কথা বলতে পারছেন না, অথচ এই নাম্বারটি আপনার অবশ্যই দরকার।

তাহলে কিভাবে আপনি খুঁজে বের করবেন ওই ব্যক্তিটি ব্যবহৃত ফোন নাম্বারটি? যার ফলে আপনি ওই ব্যক্তির সাথে কন্টাক্ট করতে পারবেন।

আপনি কারো ফোন নাম্বার খোঁজার ক্ষেত্রে মেয়ের ফেসবুক আইডি দিকে সবচেয়ে বেশি নজর দিয়ে থাকেন, কারণ সর্বপ্রথমে যে কারো সাথে কথা হওয়ার পরে আপনার মনের মধ্যে একটা দুশ্চিন্তা জাগতে পারে।

আমি যার সাথে কথা বলছি ওই ব্যক্তিটি কে আসলেই রিয়াল কোন পারসন? আর এই হিসাব সমীকরণ মিলানোর জন্য আমরা ওই ব্যাক্তিটির ফোন নাম্বারটি খুঁজে বের করি এবং তারপর ওই নাম্বারটিতে কল দেই।

আর যখনই আপনার অপর পাশে থাকা ব্যক্তির ভয়েস শুনতে পাই, তখনই আমরা এটা নিশ্চিত হয়েছে আমরা যার সাথে কথা বলছি সেই ব্যক্তিটি আসলেই সেই যাকে আমরা খুজতেছি।

এক্ষেত্রে প্রথমে আপনাকে নিচের দেয়া লিঙ্কে ক্লিক করে একটি একাউন্ট খুলে নিতে হবে।  এখানে দেয়া প্রত্যকটি বক্স ফিলাপ করতে হবে। 

shadowave

*এখানে আপনার বয়স অবশ্যই ১৮+ দিতে হবে।  যেমন আপনি চাইলে, ১৯,২০,২১ ইত্যাদি দিতে পারেন।

একাউন্ট খোলা হয়ে গেলে আপনি হোমপেজে এরকম একটা পেজ দেখতে পারবেন। এবার নিচে থেকে যেকোন একটি লিঙ্ক কপি করে নিয়ে আপনার বন্ধুবান্ধবের কাছে শেয়ার করুন।




আর যখনই কেউ এই লিঙ্কটিতে তার নাম্বার আর পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ ইন করবে তখনই আপনি তার নাম্বার পেয়ে যাবেন।

আর এটা কেউ যদি এই লিঙ্কে ক্লিক করে তার ফোন নাম্বার দেয়,তাহলে আপনি এর হোমে একটি অপশন পেয়ে যাবেন আর সেটা হলো My Victims।
ফেসবুক থেকে নাম্বার কিভাবে বের করবেন?

আর এখানে যে ব্যক্তি গুলো তাদের ফোন নাম্বার দিয়ে লগ ইন করবে তাদের নাম্বার পেয়ে যাবেন।

আর এভাবেই আপনি যে কারো ফোন নাম্বার পেয়ে যাবেন সহজেই। 

যে কারো ফেসবুক আইডি খুঁজে বের করার উপায় সম্পর্কে জেনে নিন|

যে কারো ফেসবুক আইডি খুঁজে বের করার উপায় সম্পর্কে জেনে নিন|

ফেসবুকে কারো আইডি খুজে পেতে হলে অনেকগুলো প্রসেস ফলো করতে পারেন, ক্ষেত্রে আমরা যেটা ব্যবহার করি যে তার নাম দিয়ে আমরা ফেসবুকে সার্চ করি।

আর আপনি হয়তো এ সম্পর্কে নিশ্চয়ই অবগত আছেন যে ফেসবুকে একই নাম দিয়ে কিন্তু কয়েক হাজারেরও বেশি একাউন্ট পরিলক্ষিত হয়।

এই কয়েক হাজার ফেইসবুক একাউন্ট এর মধ্যে আপনি যাকে খুঁজছেন তাকে সবচেয়ে প্রথমে পাওয়ার সম্ভাবনা কতটুকু?

ফেইসবুক অ্যালগরিদম অনুযায়ী আপনার সার্চ করা ব্যক্তিটিকে আপনি কতটা উপরে সার্চ রেজাল্টে পাবেন তা নির্ভর করবে ওই ব্যক্তিটির ফেসবুকে করা কিছু কার্যকলাপে উপর।

এক্ষেত্রে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ওই সমস্ত সার্চ রেজাল্ট সবচেয়ে উপরে দেয় যে ব্যক্তি গুলো ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি একটিভ থাকে।

এবং আপনার সার্চ করা ব্যক্তিটির যদি ফেসবুকে খুব বেশি একটিভ থাকে তাহলে ওই ব্যক্তিটি কে আপনি সার্চ রেজাল্টের সর্বপ্রথম দেখতে পারবেন।

শুধু তা নয়, আপনি যে লোকেশনে আছেন এই লোকেশনে ধারে কাছে থাকা ব্যক্তিবর্গ  এর নাম ফেসবুকে সার্চ করার মাধ্যমে আপনি সর্বপ্রথম পাবেন।

ফেসবুকে কারো আইডি খুজে বের করার জন্য শুধু যে তার নাম দিয়ে সার্চ করার মাধ্যমে আপনি খুঁজে পাবেন তা কিন্তু নয়।

আপনি ওই ব্যক্তিটি ফেইসবুক আইডি খুজে বের করার জন্য আরও কয়েকটি নিয়ম মেনে চলতে পারেন।

 আইডি লিঙ্ক


আপনি যখনই যে কারো ফেসবুক একাউন্ট খুজবেন, তখন যদি ওই ব্যক্তিটির কাছ থেকে আগে থেকে কোন লিংক সংগ্রহ করে থাকেন ওই প্রোফাইলের, তাহলে এই লিংকটি সাহায্যে আপনি কিন্তু তার ফেসবুক আইডি খুঁজে বের করতে পারবেন।

তবে অনেক সময় দেখা যায় যে এই লিংকগুলো ডেড হয়ে যায়, আর এই লিংকগুলো ডেড  হওয়ার মূল কারণ হলো, আপনি যে লিঙ্কটা খুজছেন সেই লিংকটা পরিবর্তন করা হয়েছে।

যদি ওই ব্যক্তিটি তার ফেসবুক আইডির ইউজার নেম পরিবর্তন করে নেয় তাহলে কিন্তু আপনি ওই লিংক দ্বারা ঐ ব্যক্তিটি কে খুঁজে পাবেন না।

তবে যতক্ষণ না লিংকটি পরিবর্তন হয় তখন আপনি ওই ব্যক্তির ফেইসবুক আইডির  লিংক দিয়ে তাকে খুঁজে পাবেন।

আর কারো ফেসবুক আইডি লিংক খোঁজার জন্য আপনাকে প্রথমে ওই ব্যক্তিটি প্রোফাইলে ভিজিট করতে হবে এবং তারপর  more এ ক্লিক করলেই আপনি ওই প্রোফাইলে লিংক পেয়ে যাবেন।
যে কারো ফেসবুক আইডি খুঁজে বের করার উপায় সম্পর্কে জেনে নিন|

 আইডি কোড 


আপনি যে ব্যক্তিটি ফেসবুক আইডি খুজছেন ওই ব্যক্তিটি প্রোফাইলের আইডি কোড যদি আপনি পেয়ে যান তাহলে আপনি কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে ফেসবুক আইডি খুজে পাবেন।

আর ওই ব্যক্তিটি ফেসবুক আইডি কোড খুঁজে পেতে হলে আপনাকে প্রথমে যেকোন ব্রাউজারে ফেসবুক আইডি লগইন করতে হবে।

এবং ওই ব্যক্তির প্রোফাইলে লিংকটি কপি করতে হবে পূর্বের ন্যায়, আর তারপর নিচের দেয়া লিঙ্কে ক্লিক করে প্রোফাইল লিংক এখানে পেস্ট করতে হবে।

প্রোফাইল কোড


যে কারো ফেসবুক আইডি খুঁজে বের করার উপায় সম্পর্কে জেনে নিন|

আর উপরে দেয়া ফেসবুক প্রোফাইল লিংক কোড এর সহায়তায় আপনি যে কারো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুঁজে পেতে পারেন।

উপরের দেয়া দুইটি গুরুত্বপূর্ণ উপায় আপনি চাইলে যে কারো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুঁজে বের করতে পারেন।

ফেসবুকে ইউটিউব এর লিঙ্ক কিভাবে যুক্ত করবেন?

ফেসবুকেে ইউটিউব এর লিঙ্ক কিভাবে যুক্ত করবেন?

একটিমাত্র প্ল্যাটফর্ম যার নাম ফেসবুক, যে প্ল্যাটফর্মটির দ্বারা আপনি যে কোন কার্য সম্পাদন করতে পারেন। 

আর এই সবকিছু নির্ভর করবে আপনি কিভাবে ফেসবুক ব্যবহার করছেন সেটার উপরে। এজন্য আপনাকে অবশ্যই একজন অভিজ্ঞ ফেসবুক ব্যবহারকারী হতে হবে।

অনেকে আছে যে একটি ফেসবুক একাউন্ট খুলে অনেক পপুলারিটি অর্জন করতে পেরেছেন, আর  এই একই ফেইসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে অনেক কার্যাদি সম্পাদন করতে চাইছেন।

যেমন উদাহরণস্বরূপ আপনার যদি একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকে এবং ফেমাস হয়ে যাওয়া ওই ফেইসবুক আইডি দ্বারা আপনার ইউটিউব চ্যানেলের লিংক প্রমোট করতে চান, তাহলে আপনি তা করতে সক্ষম হবেন।

অনেকেই আছেন তারা এটা চান যে তাদের ফেসবুক আইডিতে ইউটিউব এর লিংক দিয়ে এটাকে প্রচার করার, আপনি হয়তো তাদের মধ্যেই একজন।

আর আপনি হয়তো এটা চাইছেন যে আপনার ফেসবুক আইডিতে কিভাবে ইউটিউব চ্যানেলের লিংক যুক্ত করা যায়?

এক্ষেত্রে এই কাজটি আরও সহজভাবে সম্পাদন করার জন্য আপনাকে ফেসবুকে অফিশিয়াল অ্যাপস ব্যবহারকারী হতে হবে।

আপনি যদি আপনার ফোনে পূর্বে ফেসবুকের অফিশিয়াল অ্যাপস ডাউনলোড করে না থাকেন, তাহলে নিচের দেয়া লিঙ্ক থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

Facebook

আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগইন করা হয়ে গেলে এবার আপনার প্রোফাইলে চলে যান তারপরে ক্লিক করুন Edit Public Details এই অপশনটিতে।

এবার পেইজটি একটু নিচের দিকে স্ক্রোলিং করলে আপনি দেখতে পারবেন Links নামক অপশনটি, আপনাকে এবার Edit এ ক্লিক করতে হবে।


ফেসবুকেে ইউটিউব এর লিঙ্ক কিভাবে যুক্ত করবেন?

এবার এখান থেকে Add website এ ক্লিক করলেই আপনার ওয়েবসাইট কিংবা ইউটিউব চ্যানেলের লিংক যুক্ত করতে পারবেন।

ফেসবুকেে ইউটিউব এর লিঙ্ক কিভাবে যুক্ত করবেন?

লিংক যুক্ত করা হয়ে গেলে সেভ করে দিন, এবার আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে ভিজিট করলে আপনি দেখতে পারবেন যে ইউটিউব চ্যানেলের লিংক যুক্ত হয়ে গেছে।

আর এতে করে আপনার ফেইসবুক প্রোফাইল থেকে  ইউটিউব চ্যানেল খুব বেশি সংখ্যক পেজ ভিউ বাড়াতে পারবেন।

কিভাবে ফেসবুকে কালার পোস্ট এবং কালার কমেন্ট করবেন?

কিভাবে ফেসবুকে কালার পোস্ট এবং কালার কমেন্ট করবেন?

আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে কালারফুল পোস্ট কিংবা অন্যের স্ট্যাটাসে কমেন্ট করার ইচ্ছা শেষ কখন জেগেছিল? 

নিশ্চয়ই আপনি যখনই অন্য কারো পাবলিশ করার স্ট্যাটাস বিভিন্ন রকম ভাবে দেখেন তখনই আপনার মধ্যে আকাঙ্ক্ষাটা যাবে।

আর এই ভিন্নভাবে বলতে, আপনি হয়তো অনেকের টাইমলাইনে দেখতে পারেন যে তারা বিভিন্ন কালারের সমন্বয়ে তাদের স্ট্যাটাস পাবলিশ করছে অথবা অন্যের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করেছে।

আপনি হয়তো পূর্বে থেকেই জানেন ফেসবুকে এরকম কোনো ফিচারস নেই যার দ্বারা আপনি কোন একটি লেখাকে সিলেক্ট করে, এটাকে কালারফুল করতে পারবেন।

যার কারণে আপনাকে ফেসবুক ব্যবহার উপযোগী কিছু কালার কোড ব্যবহার করতে হয়, আরে কালার কোড গুলোর মধ্যে বিভিন্ন কালার কোড গুলো বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে।

আপনি যখনই এ কালার কোড গুলো যথাযথ ভাবে আপনার যেকোনো স্ট্যাটাসের মধ্যে এপ্লাই করবেন, তখনই দেখবেন যে আপনার স্ট্যাটাসটি কোন একটি বর্ণ ধারণ করেছে।

তাহলে ফেসবুকে কালারফুল পোস্ট করার উপায় আসলে কি? কিভাবে আপনি ফেসবুকে কালারফুল পোস্ট করবেন?

এক্ষেত্রে আপনাকে শুধুমাত্র আজকের এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত দেখতে হবে।

তাহলে আগে প্রথমে নিচে দেয়া কোডগুলো থেকে আপনার পছন্দের কালার কোড বেছে নিন।

<fg=b0ffd700> golden
<fg=b0000000> black
<fg=b0ff7f00> orange
<fg=b0ffff00> yellow
<fg=b0ff00ff> light pink
<fg=b0ff007f> dark pink 
<fg=b0ff0000> redish pink
<fg=b0800000> brown
<fg=b0ffc0cb> light purple
<fg=b06f00ff> dark blue
<fg=b0c0c0c0> grey
<fg=80ffffff> sky blue 
<fg=b000ffff> light blue
<fg=b0bf00ff> purple
<fg=b08f00ff> dark purple
<fg=b0808000> mehandi green
<fg=b0ba55d3> light purple
<fg=b0f000f0> majenta 
<fg=b00000ff> blue
<fg=b0b08080> steel grey
<fg=b0000080> movve
<fg=b0964b00> light brown
<fg=f0f00f0f> red
<fg=b000ff00> green


উপরে দেয়া কোডগুলো যদি আপনার মনের মত না হয় অর্থাৎ আপনি যদি অন্য কোন কালারের নাম জানেন যার দ্বারা আপনি পোস্ট করতে চান,তাহলে এটা আপনি কোথায় পাবেন?

এক্ষেত্রে আপনি নিচের দেয়া লিঙ্কে ভিজিট করলেই পৃথিবীর সমস্ত কালার গুলো দেখতে পারবেন, এখান থেকে শুধুমাত্র আপনাকে কোডটি কপি করে আনতে হবে, এবং তারপর উপরে দেয়া ফর্মুলা অনুযায়ী বসিয়ে দিতে হবে।

যে অংশটি আমি কালার করেছি শুধুমাত্র এই অংশটিতে আপনার পছন্দের কালার কোড টি বসিয়ে দিলেই হবে।

<fg=b0ffd700> golden

Colour Code

কিভাবে ফেসবুকে কালার পোস্ট এবং কালার কমেন্ট করবেন?

এখন আপনি যদি উপরে দেয়া কোডগুলো  নিয়ে আপনার স্ট্যাটাসে বসিয়ে দেন তাহলে এগুলো কোন রকমের কাজ করবে না।

এখন আপনি বলতে পারেন তাহলে এই কোডগুলো দেয়ার মানে কি? যদি এই কোড গুলো কাজ না করে তাহলে এই কোড গুলো গুলো দিয়ে কি হবে?

এক্ষেত্রে আপনাকে উপরের দেয়া কোডগুলো একই রকম ভাবে কাস্টমাইজ করতে হবে। আর কিভাবে তা করবেন এর ফর্মুলা আমি নিচে দিয়ে দিচ্ছি।

<fg=b0ffff00>hiii  

আর এভাবেই আপনি যখনই কোন কিছু লিখে ফেসবুক টাইমলাইনে পাবলিশ করবেন তখনই এটা কালারফুল হয়ে যাবে।

আপনি যদি লেখাটিকে আরো বেশি গাঢ় করতে চান তাহলে আপনি চাইলে আরেকটি কোড এর প্রথমে ব্যবহার করতে পারেন।

<b><fg=b0ffff00>hiii

আর এভাবে আপনার ফেসবুকে পাবলিশ করা স্ট্যাটাসে এবং কমেন্টে যে কোন ধরনের কালার ব্যবহার করতে পারবেন।

ফেসবুক ট্রাস্টেড কন্টাক্ট কি? কেন আপনি এটি খোলা রাখবেন?

ফেসবুক ট্রাস্টেড কন্টাক্ট কি? কেন আপনি এটি খোলা রাখবেন?

ফেসবুকে ট্রাস্টেড কন্টাক্ট হল আপনার বিশ্বস্ত কয়েকজন বন্ধুদেরকে নিয়ে তৈরি করা একটি চার্ট। যেখানে আপনার বিশ্বস্ত ৩-৫ জন বন্ধুকে আপনি অ্যাড করতে পারবেন।

তবে ফেসবুকের ট্রাস্টেড কন্ট্যাক্টস একটি ছোটখাটো ব্যাপার নয়, এটা যদি আপনার ফেসবুক আইডিতে ব্যাবহার করেন তাহলে আপনি অনেক ধরনের সমস্যা থেকে চিরমুক্তি লাভ করবেন।

যেমন ফেসবুকের  হ্যাকিং নামক সমস্যায় অনেকেই জর্জরিত হয়, তাদের ফেসবুক আইডি এমন ভাবে হ্যাক হয় যাতে করে তারা এটা ফিরিয়ে আনতে পারে না।

কিন্তু আপনি যদি ট্রাস্টেড কনটাক্ট ব্যবহার করেন তাহলে কিন্তু আপনি খুব সহজেই আপনার হ্যাক হয়ে যাওয়া ফেসবুক আইডি তাদের মাধ্যমে ফিরিয়ে আনতে পারবেন।

বিষয়টা এরকম যে যখনই আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হবে তখন আপনি যখন এই আইডি থেকে এক্সেস নিতে চাইবেন, তখন আপনি তাদের সহায়তা নিবেন।

এক্ষেত্রে আপনাকে আপনার ট্রাস্টেড কন্টাক্টস এ থাকা বন্ধুদেরকে একটি ছোট্ট মেসেজ দিতে হবে, তাদেরকে বলতে হবে যে তারা যেন ব্রাউজারের একটি ছোট্ট স্টেপ ব্যবহার করে।

যেমন তারা যদি প্রত্যেকেই তাদের ফোনে  যেকোন ব্রাউজারে এই লিংকটি টাইপ করে তাহলে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগ ইন কোড আপনি পেয়ে যাবেন- m.facebook.com/recover

শুধু ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক হওয়া আইডি ফেরত আনতে ট্রাস্টেড কন্ট্যাক্টস ব্যবহার করা হয় তা কিন্তু নয়।

ফেসবুকে বর্তমানে বিভিন্ন রকমের ডিজেবল সংক্রান্ত বিষয়গুলো আমাদের ফেসবুক আইডিতে ঘটে থাকে ।

এই সমস্যাগুলি এতটাই জটিল হয় যে আমরা অনেকেই এই সমস্যা থেকে আমাদের ফেসবুক আইডি আনলক করতে পারিনা।

তবে এই ট্রাস্টেড কন্টাক্টস থাকার কারণে আপনি কিন্তু আপনার ফেসবুক আইডিতে এই সমস্ত ডিজেবল সংক্রান্ত বিষয় গুলোকে খুব সহজেই শেষ করে দিতে পারেন।

শুধু তাই নয় ফেসবুক সংক্রান্ত যেকোন সমস্যা থেকে উত্তরণের জন্য এ ট্রাস্টেড কন্টাক্টস এর কোন বিকল্প নেই। আর এটা আপনার ফেসবুক আইডিতে তৈরি করতে খুব বেশি একটি সমস্যার সম্মুখীন আপনি হবেন না।

এটা খুব সহজেই আপনার ফেসবুক আইডিতে ব্যবহার করতে পারবেন, এক্ষেত্রে একটি বিষয় অবশ্যই আপনাকে লক্ষ্য রাখতে হবে,আপনি আপনার ট্রাস্টেড কন্টাক্ট এ যে সমস্ত বন্ধুদের কে যুক্ত করবেন তারা যেন অবশ্যই আপনার বিশ্বস্ত হয়।

কারণ ফেসবুকে ট্রাস্টেড কন্টাক্ট এ থাকা ব্যক্তিসমূহ আপনার ফেসবুক আইডি কন্ট্রোল করার মতো ক্ষমতা রাখে।

এক্ষেত্রে আপনি আপনার ফেসবুক আইডি দিতে পারেন কিংবা আপনার বিশ্বস্ত কোন বন্ধু থাকলে তার ফেসবুক আইডি যুক্ত করতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনার ৩জন থেকে ৫ জন বন্ধুকে আপনার ফেসবুক আইডি কন্ট্রোল করার দায়িত্ব দিতে হলে নিচে দেয়া প্রসেসটি ফলো করুন।

এক্ষেত্রে আপনাকে আপনার ফেসবুক আইডিতে লগইন করতে হবে এবং তারপর Security And Login-Choose 3 or 5 Friends contact if you get locked out- এবং এখানে আপনার ফেসবুক আইডির পাসওয়ার্ড দিতে হবে।


ফেসবুক ট্রাস্টেড কন্টাক্ট কি? কেন আপনি এটি খোলা রাখবেন?

আর যখনই আপনি উপরের মেসেজটি ব্যবহার করবেন তখনই আপনার সামনে নিচের দেয়া স্ক্রীনশটএর মত একটি পেইজ ওপেন হবে।

এখানে আপনি আপনার সমস্ত বন্ধুদের কে দেখতে পারবেন, আপনার উচিত হবে এখান থেকে আপনার বিশ্বস্ত তিনজন কিংবা পাঁচ জন বন্ধুদেরকে সিলেক্ট করা।

আর তারপর সেভ করে দিলে আপনি দেখতে পারবেন যে আপনার ট্রাস্টেড কন্ট্যাক্টস নামক অপশনটিতে আপনি যে বন্ধুদেরকে সিলেক্ট করেছেন,তাদেরকে দেখাচ্ছে।

আপনি চাইলে আপনার পছন্দমত এখান থেকে আপনার যে কোন বন্ধুকে রিমুভ করতে পারবেন অথবা ইচ্ছা করলে অন্য আরো বন্ধুদের কে যুক্ত করতে পারবেন।

আর এভাবেই আপনি চাইলে খুব সহজেই ফেসবুকে ট্রাস্টেড কন্ট্যাক্টস নামক অপশনটিকে ওপেন করতে পারবেন।