মেয়ে পটানোর জাদুকরী কৌশল গুলো দেখে নিন এক নজরে|

মেয়ে পটানোর জাদুকরী কৌশল গুলো দেখে নিন এক নজরে|

মেয়েদের মন জয় করতে কে চায় না, মোট কথা হল আপনি যখনই কোন মেয়ের মন জয় করে নিবেন তখন আপনি ওই মেয়েটির কাছ থেকে যা চাইবেন তাই পাবেন।

কিন্তু আপনাকে তো আগে ওই মেয়েটির মন জয় করতে হবে, কিভাবে করবেন যে কোন মেয়ের মন জয়? জানতে হলে আজকের এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত দেখুন।

আপনি যদি নিচের দেয়া তিনটি বিষয় যথাযথভাবে কোন মেয়ের উপর প্রয়োগ করতে পারেন তাহলে দেখবেন এমনিতেই আপনি ওই মেয়েটির মন জয় করে নিয়েছেন।

▪ মেয়েদের প্রশংসা করুন
▪ রোমান্টিক কথা বলুন
▪ মজার কথা বলুন

শুধু উপরে উল্লেখিত তিনটি উপায় যে আপনি মেয়েদের মন জয় করতে পারবেন তা কিন্তু নয়, এরকম আরো হাজার খানেক উপায় আছে এটা করার জন্য।

তবে উপরে দেয়া তিনটি উপায় সবচেয়ে কার্যকরী এবং এগুলো খুব সহজেই আপনি করতে পারেন, তাহলে কিভাবে কোন মেয়েকে উল্লেখিত তিনটি উপায় দ্বারা মন জয় করবেন?

বিষয়গুলোকে একেবারে ছোট ছোট আকারে বর্ণনা করা যাক।


 মেয়েদের প্রশংসা করুন


শুধু মেয়েই কেন আপনি যে কারো প্রশংসা করলে সে অবশ্যই আপনার প্রতি আকৃষ্ট হবে, এবং  প্রশংসা গুলো অবশ্যই আপনাকে কিছু নিয়ম মেনে করতে হবে।

কারণ আপনি যদি যখন-তখন যে কারো প্রশংসা করেন তাহলে সে এটাকে খুব একটা আমলে নেবে না, কারণ এটা মূর্খের কাজ।

আপনি মেয়েদের প্রশংসা করার ক্ষেত্রে আবার তিনটি উপায় ফলো করতে পারেন-

রূপের প্রশংসা করুন
▪ গুণের প্রশংসা করুন
▪ এবং মার্জিত আচরন এর প্রশংসা

আপনি যদি কোন মেয়ের রূপের প্রশংসা করেন তাহলে সে আপনার দিকে অন্য রকম দৃষ্টিভঙ্গিতে তাকাবে, 

হয়তো সেটা ভাববে পৃথিবীর অনেক মানুষের মধ্যে আপনি হয়তো সেই জন যাকে সে আপন করে নিতে পারে।

তবে আপনি যখন তখন তার রূপের প্রশংসা করা বোকামী হয়ে যাবে, এজন্য আপনাকে সঠিক সময় নির্বাচন করতে হবে।

উদাহরণস্বরূপ আপনি তাকে কোন একটা পার্টিতে দেখলেন, কিংবা যেকোনো একটি অনুষ্ঠানে দেখলেন। তখন আপনি তাকে বলতে পারেন তোমার কপালে থাকা টিপ এ দারুণ মানাচ্ছে তোমায়।

তুমি আসলেই অনেক বেশি সুন্দরী, আর এভাবেই আপনি তার রূপের প্রশংসা করতে পারেন।

রূপের প্রশংসা করা শেষ হলে আপনি আবার তার গুণের প্রশংসা করতে পারেন, আপনি ওই মেয়েটিকে এভাবে বলতে পারেন- তোমার রূপের মত তোমার গুন গুলো অসাধারণ।


মেয়ে পটানোর জাদুকরী কৌশল গুলো দেখে নিন এক নজরে|


তুমি আসলে সব কিছু বুঝ এবং সব কিছু করতেও পারো, এছাড়াও এটা বলতে পারেন যে তোমার মতো গুণবতী মেয়ে এই পৃথিবীতে আর একজন খুঁজে পাওয়া যাবে না।

আর এভাবে আপনি  তার গুণের প্রশংসা করতে পারেন।

আর আপনি তাকে এটা বলতে পারেন যে তোমার আচরণে সত্যি আমি আকৃষ্ট, তুমি সত্যিই সবার সাথে ভালো আচরণ করতে সক্ষম।

এছাড়াও আপনি আরো বানিয়ে বানিয়ে কথার বুলি ফুটাতে পারেন। প্রশংসা সাগরে ভাসিয়ে দিতে পারেন কোন মেয়েকে এবং তার মন জয় করে নিতে পারেন।


 রোমান্টিক কথা বলুন


এবার আপনি চাইলে মেয়েদের সাথে রোমান্টিক কথা ভিন্ন ভিন্ন ভাবে বলতে পারেন। যেমন আপনি চাইলে তাদের সাথে ভালোবাসার কথা বলতে পারেন।

বিভিন্ন ধরনের রোমান্টিক গল্প বলতে পারেন, যাতে করে খুব সহজেই আপনি তাদের মনের মধ্যে জায়গা করে নিতে পারবেন।

মোটকথা হলো আপনাকে এমন ভাবে তাদের সাথে রোমান্টিক কথা বলতে হবে যাতে আপনি এটা প্রমাণ করতে পারেন, আপনি আসলেই সবার চেয়ে ভিন্ন।

আপনি চাইলে মেয়ের সাথে এরকম কথা বলতে পারেন,

আপনি ওই মেয়েটিকে বলবেন- আচ্ছা আমি তোমাকে আগে একটি কথা বলে রাখি? তখন ওই মেয়েটি বলবে কি কথা বলতে চাও?

তখন আপনি বলে দিবেন যে আমি যদি তোমার প্রেমে পড়ে যাই তাহলে এতে তো আমার কোন দোষ হবে না? তখন ওই মেয়েটি বলবে- আচ্ছা কেন?

তখন আপনি বলবেন- "তোমার রোমান্টিক কথার বেড়াজালে আমি হয়তো আটকে পরে তোমাকে ভালবাসতে পারি" তখন মেয়েটি একটি মুচকি হাসি দেবে। এবং আপনার দিকে অগ্রসর হবে।

এবং এরকম রোমান্টিক কথা শুনে মেয়েটি এটা বুঝতে পারবে যে আপনি হয়তো তার প্রেমে পড়ে যাচ্ছেন।


 মজার কথা বলুন


আপনি চাইলে মেয়েদের মনে জায়গা করে নেয়ার জন্য তাদের সাথে মজার মজার কথা বলতে পারেন। যেমন বিভিন্ন ধরনের জোকস বলতে পারেন, মজা করতে পারেন।

তবে যে কারো সাথে আবার মজার কথা বলতে যাবেন না, কারণ এতে মেয়ে পটানোর চেয়ে হারিয়ে ফেলার আশঙ্কাটাই বেশি।

আপনাকে প্রথমত যে মেয়েটিকে পটাতে চান সেই মেয়েটি সম্পর্কে ভালোভাবে ধারণা নিতে হবে, সে আসলে মজার কথাগুলো পছন্দ করে কিনা।

কারণ এরকম অনেক বদমেজাজি মেয়ে আছে যারা মজার কথাবার্তা একদম পছন্দ করেনা, তারা সব সময় সব কথা  সিরিয়াসলি নিয়ে নেয়।

তবে এরকম টাইপের মেয়ে আপনি খুব কমই খুঁজে পাবেন, শতকরা প্রায় ৯৫ ভাগ মেয়ে অন্যদের সাথে মজা করতে ভালোবাসে।

পনি যদি এরকম কোন মেয়ের খপ্পরে পড়েন তাহলে খুব সহজেই তাদের সাথে মজার মজার কথা বলে তাদের পাত্তা আদায় করে নিতে পারেন।

তবে তাদের সাথে সব সময় মজা করা থেকে বিরত থাকুন, বিশেষ কোন সময়ে যখন তাদের ফুরফুরে মেজাজ কাজ করবে তখনই তাদের সাথে মজা করুন।

অন্যথায় তাদের মন খারাপের সময় যদি আপনার মজা করা কে খারাপ ভাবে নিয়ে নেয় তাহলে কিন্তু মেয়েটিকে আপনি কখনো পটাতে পারবেন না।

আপনি যদি মেয়েটিকে মজা করে বলতে পারেন তোমার হৃদয়ে ওয়াইফাই টা অন করো তো, আমি একটু আমার হৃদয়টাকে কানেক্ট করতে চাই।

তখন হয়তো মেয়েটি অনেক বেশি মজা পাবে। এবং প্রতি উত্তরে বলবে-কেন??

আপনি বলবেন সুন্দরী মেয়ে বলতে তো শুধু তোমাকেই চিনি, তাছাড়া তুমি অনেক গুণবতী রূপবতী, যার হৃদয় এর সাথে কানেক্ট করলে আমার জীবনটা সার্থক হবে।

তখন ওই মেয়েটি আপনাকে নিয়ে ভাববে, এবং আপনি খুব সহজেই তার মনের মধ্যে জায়গা করে নিতে পারবেন।

আর উপরের দেয়া ছোট প্রসেস গুলোর মাধ্যমে আপনি চাইলে যে কোন মেয়ের মন জয় করে নিতে পারেন।

ইমো ব্যবহার করেন কিন্তু জানেন কি ইমোতে লুকিয়ে থাকা 6 টি সেটিং সম্পর্কে?

ইমু ব্যবহার করেন কিন্তু জানেন কি ইমুতে লুকিয়ে থাকা 6 টি সেটিং গুলো সম্পর্কে?

বন্ধু এবং পরিবারের সবার সাথে ভিডিও কল কিংবা অডিও  কলে কথা বলার জন্য বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় গুলোর মধ্যে অন্যতম হলো ইমো।

আপনি চাইলে এই অ্যাপসটি সহযোগিতায় বিশ্বের যেকোন প্রান্তে যেকোন কারো সাথে খুব সহজেই যোগাযোগ রাখতে পারবেন।

সবচেয়ে ভালো ব্যাপার হলো এই যে,এই অ্যাপসটি একদম কম নেটওয়ার্ক কানেকশন এ ভালো সার্ভিস দেয়, আপনি চাইলে টুজি, থ্রিজি, ফোরজি যেকোনো নেটওয়ার্ক এটি ব্যবহার করতে পারেন।

 সিক্রেট কালার


ইমোতে আমরা প্রায় প্রত্যেক সময় সাদা রঙের চ্যাট বক্সে যে কারো সাথে চ্যাট করি। আর প্রায় প্রত্যেক সময় একই রকমের কালার দেখার কারণে আমাদের বিরক্তি আসতে পারে।

কিন্তু আপনি চাইলে এই কালারটি কে পরিবর্তন করে আপনার মনের মত কালার দিয়ে আপনার প্রিয়জনের সাথে চাট করতে পারবেন।

আর এজন্য আপনাকে যে কারো চাট লিস্ট ঢোকার পর বামদিকের 3 ডট করতে হবে ক্লিক করতে হবে। তাহলে আপনি একটি অপশন দেখতে পারবেন "Chat Colour" 


ইমু ব্যবহার করেন কিন্তু জানেন কি ইমুতে লুকিয়ে থাকা 6 টি সেটিং গুলো সম্পর্কে?


আর এতে ক্লিক করলেই আপনি অনেকগুলো কালারের মধ্যে আপনার পছন্দের কালার বেছে নিতে পারেন।

 রিংটোন পরিবর্তন


আপনি ইমোতে প্রায় প্রত্যেক সময় এক রকম রিংটোন দেখতে পান। আপনি চাইলে কিন্তু আপনার মনের মত রিংটোন দিতে পারবেন যেকোনো ইনকামিং কলের জন্য।

এজন্য ইমু সেটিং অপশনে ক্লিক করার পর, Notification অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনি যেকোন ধরনের রিংটোন পরিবর্তন এর অপশন গুলো দেখতে পারবেন।

আপনি চাইলে ইনকামিং কল রিংটোন কিংবা মেসেজ এ রিংটোন পরিবর্তন করতে পারবেন।


ইমু ব্যবহার করেন কিন্তু জানেন কি ইমুতে লুকিয়ে থাকা 6 টি সেটিং গুলো সম্পর্কে?




 অটোমেটিক ফটো ভিডিও ডাউনলোড


অনেক সময় দেখা যায় আমাদের বন্ধু বান্ধব ইমোতে কোন ছবি কিংবা ভিডিও শেয়ার করলে তা অটোমেটিক আমাদের ফোনে সেভ হয়ে যায়।

অনেক সময় এটা আমাদের সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়, কারণ আপনি যদি অনেকগুলো ইমু চ্যাট গ্রুপে থাকেন তাহলে প্রতিদিন অনেক ছবি, ভিডিও অটোমেটিক্যালি আপনার ইনবক্সে আসতে পারে।

এ মধ্যে অযথাই ছবি ভিডিওতে আপনার ফোনের কিংবা মেমোরি কার্ডের স্টোরেজ পূর্ণ হয়ে যাবে। যা আপনি কখনই চাইবেন না।

আপনি যদি এটি বন্ধ করতে চান তাহলে প্রথমে ইমু সেটিং অপশনে ক্লিক করুন, তারপর  Genarel অপশনটিতে ক্লিক করার পর আপনি দেখতে পারবেন Storage অপশনটি।

Storage অপশনটিতে ক্লিক করার পর আপনাকে শুধুমাত্র নিচের দেয়া দুটি অপশন সিলেক্ট করা থাকলে এগুলো রিমুভ করতে হবে।


ইমু ব্যবহার করেন কিন্তু জানেন কি ইমুতে লুকিয়ে থাকা 6 টি সেটিং গুলো সম্পর্কে?



 অ্যাক্টিভ স্ট্যাটাস বন্ধ 


আপনি যখন ইমোতে একটিভ থাকেন তখন যে কেউ আপনাকে দেখতে পারবে যে আপনি এখন অনলাইনে আছেন। অনেক সময় এটা আমরা চাই না।

এটার কারণ অনেকগুলো হতে পারে, আপনি হয়তো বেক্তিগত কোন সমস্যার কারণে ইমোতে আপনার অ্যাক্টিভ স্ট্যাটাসটি বন্ধ করে রাখতে চান।

আপনি এটা চান যে আপনি ইমোতে একটিভ থাকেন কিন্তু এটা কেউ দেখতে না পায়, এজন্য আপনাকে একটি ছোট্ট প্রসেস ফলো করতে হবে।

 আপনাকে পূর্বের মতো ইমো সেটিং অপশনে যেতে হবে, তারপর Privacy তে ক্লিক করলে Last Seen নামক একটি অপশন দেখতে পাবেন।

এটার উপর ক্লিক করার পর তা যদি My Contact করা থাকে তাহলে এটাকে  nobody করে সেভ করে দিন। তাহলে ইমোতে আপনি অ্যাক্টিভ থাকলেও কেউ তা দেখতে পারবেনা।

ইমু ব্যবহার করেন কিন্তু জানেন কি ইমুতে লুকিয়ে থাকা 6 টি সেটিং গুলো সম্পর্কে?



 ইমু ক্যামেরা


আপনি চাইলে ইমু এপস এর মাধ্যমে খুব ভালো ছবি তুলতে পারেন, আর এর জন্য আপনাকে বারবার ইমু তে ঢুকতে হয় ছবি তোলার জন্য।

কিন্তু আপনি যদি একবার ইমু ক্যামেরাকে আপনার হোমস্ক্রীনে এডিট করে দেন তাহলে আপনি এখানে ক্লিক করার মাধ্যমে ছবি উঠতে পারবেন।

অর্থাৎ বারবার আপনাকে ইমোতে ঢুকতে হবে না ছবি উঠার জন্য। এজন্য আপনাকে সেটিং অপশনে যেতে হবে এবং তাহলে আপনি একটি সেটিং পেয়ে যাবে না সেটি হল 'Add Camera On Homescreen'

এটাকে ক্লিক করলে এতে আপনার হোমস্ক্রীনে ইমো ক্যামেরা যুক্ত হয়ে যাবে, এবং আপনি চাইলে এখানে ক্লিক করার মাধ্যমে যে কোন সময় ছবি উঠতে পারবেন।

 প্রোফাইল পিকচার লুকানো


আপনি চাইলে ইমোতে শেয়ার করে আপনার প্রোফাইল পিকচার থেকে লুকিয়ে রাখতে পারবেন, যাতে করে কেউ এটি দেখতে পারবেনা।

এতে আপনি চাইলে সবার জন্য উন্মুক্ত করে দিতে পারেন আবার আপনার ফ্রেন্ডের জন্য উন্মুক্ত করতে পারেন কিংবা শুধুমাত্র নিজের জন্য উন্মুক্ত করতে পারেন।

এজন্য আবার আপনাকে সেটিং অপশনে যেতে হবে তারপর ক্লিক করতে হবে Privacy অপশনটিতে এবং তাহলে আপনি দেখতে পারবেন Avator নামক অপশন।

এখন আপনি যদি এই অপশনটিতে ক্লিক করে এটাকে "Everyone করে দিন তাহলে প্রোফাইল পিকচার সবাই দেখতে পারবে, My Contact সিলেক্ট করলে শুধুমাত্র আপনার ফ্রেন্ডরা দেখতে পারবে।

আর আপনি যদি এটাকে Nobody  সিলেক্ট করে দিন তাহলে কেউ আপনার প্রোফাইল পিকচার দেখতে পারবেনা।



ইমু ব্যবহার করেন কিন্তু জানেন কি ইমুতে লুকিয়ে থাকা 6 টি সেটিং গুলো সম্পর্কে?


আর উপরে দেয়া গুরুত্বপূর্ণ সেটিং গুলো অবশ্যই আপনাকে জানতে হবে যদি আপনি ইমো ব্যবহার করে থাকেন!

পাসওয়ার্ড কি? বাছুন একটি সর্বোচ্চ নিরাপত্তা মূলক পাসওয়ার্ড|

পাসওয়ার্ড কি? বাছুন একটি সর্বোচ্চ নিরাপত্তা মূলক পাসওয়ার্ড|

পাসওয়ার্ড  কয়েকটি বিশেষ অক্ষর এর সমষ্টি, যা আপনার সুরক্ষা সর্বোচ্চ স্তর। যে কোন ধরনের প্লাটফর্মে পাসওয়ার্ড প্রয়োজন।

আপনার ওয়েবসাইট কিংবা ফেসবুক অ্যাকাউন্ট কতক্ষণ আপনার আছে সেটা নির্ভর করবে  পাসওয়ার্ড এর উপর।

এই পাসওয়ার্ডটি আপনি যতটা স্ট্রং করে দিবেন আপনার টিকে থাকার সম্ভাবনা ঠিক ততটাই বৃদ্ধি পাবে।

আর এই পাসওয়ার্ড দেয়ার বেলায় আমরা অনেক ধরনের মারাত্মক ভুলগুলো করে থাকি,যেগুলো আমাদের সমস্যার সম্মুখীন করে।

আর আজকের এই পোস্টটিতে আমি পাসওয়ার্ড সম্পর্কে সম্পূর্ণ আলোচনা করব, কোন পাসওয়ার্ড দেয়া ঠিক হবে আর কোন পাসওয়ার্ডটি কারণে আপনি হ্যাকিং এর সম্মুখীন হতে পারেন।

 পাসওয়ার্ড দেয়ার সময় করা ভুল গুলো


পাসওয়ার্ড দেয়ার বেলায় আমরা যে সমস্ত ভুল করে থাকি তার মাশুল আমাদের বহু দিন গুণতে হয়।

অনেক সময় এ পাসওয়ার্ড এর কারণেই আমাদের সারা জীবনের পরিশ্রমটা বিফলে চলে যায়। আর এর জন্য দায়ী শুধুমাত্র আপনি।

অনেক সময় দেখা যায় আমরা পাসওয়ার্ড চয়েজ করার সময় যেকোনো একই ধরনের  সংখ্যা বা আলফাবেট ব্যবহার করে থাকি।

আর এটা যখন আমরা ব্যবহার করি তখন আমাদের মনে হয় এরকম সহজ পাসওয়ার্ড দেয়াই ভালো, যাতে করে আমাদের মনে থাকবে।

তবে আপনার এই খামখেয়ালি আপনার বিপদ ডেকে আনতে পারে, পাসওয়ার্ড নির্বাচনের সময় আমরা সাধারণত কোন সহজ পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে থাকি।

পাসওয়ার্ডটি হতে পারে এরকম -225588 বা এর  চেয়ে আরো সহজ। আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন এ পাসওয়ার্ডগুলো আপনার কী বিপদ ডেকে আনতে পারে?

যখন কোন সাধারণ হ্যাকার কিংবা নতুন হ্যাকার আপনার অ্যাকাউন্টের সাথে লেগে পড়ে থাকবে তখন এই পাসওয়ার্ড এর সাহায্যে তারা খুব সহজে আপনার একাউন্টটি হ্যাক করে নিবে।

কারণ তাদের কাছে এরকম অনেক টুলস আছে যার সাহায্যে তারা সহজ পাসওয়ার্ডগুলো একদম হাতেগোনা কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই চিহ্নিত করে নেয়।

তার মধ্যে জনপ্রিয় অ্যাক্টিভ হ্যাকিং সিস্টেম হলো - Bruce Force Attack এটি একটি জনপ্রিয় হ্যাকিং সিস্টেম যার মাধ্যমে তারা সহজেই পাসওয়ার্ড ছিনিয়ে নেয়।

আর তাই আপনাকে অবশ্যই এরকম কোন পাসওয়ার্ড দিতে হবে যেকোন হবে আনকমন যে পাসওয়ার্ডগুলো  হ্যাকার কল্পনাও করতে পারে না।

 একটি পাসওয়ার্ড বাছুন


আপনার একাউন্টে সুরক্ষার জন্য অবশ্যই আপনাকে এরকম কোন পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে,যে পাসওয়ার্ডগুলো কারো সাধ্য নেই জানার।

আর এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কঠিন হলো পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা, শুধু পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার নয় একটি আনকমন ইউনিক পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা।

আর পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার সময় আপনি যখন নতুন একটি পাসওয়ার্ড চয়েজ করতে যাবেন তখন আপনাকে কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে।

পাসওয়ার্ডটি বড় করুন- চেষ্টা করবেন যে কোন ওয়েবসাইট-এ কিংবা ফেসবুক যখন ব্যবহার করবেন কিংবা যেকোন প্ল্যাটফর্ম একাউন্ট খোলার জন্য যতটুকু পাসওয়ার্ড লিমিট আছে ততটুকু দেওয়ার।

কারণ বেশি সংখ্যক শব্দের সহকারে তৈরিকৃত পাসওয়ার্ড হ্যাক করা অনেক কষ্টসাধ্য, তবে আপনি যদি মনে করেন এত লম্বা পাসওয়ার্ড কিভাবে মনে রাখব?

তাহলে আপনি সংখ্যাগুলোকে কমিয়ে দিন। তবে এতটাও কমাবেন না যাতে করে আপনার পাসওয়ার্ডটি হ্যাকারদের সাধ্যের মধ্যে থাকে।

আপনি চাইলে একদম মিনিমাম পাসওয়ার্ড লিমিট দশটি শব্দের সমন্বয়ে  দিতে পারেন। তবে এই দশটি শব্দ যেকোনো রকম হলে চলবে না।

পাসওয়ার্ডের শব্দ- যখন আপনি একটি লম্বা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে চাইবেন তখন আপনাকে কয়েকটি পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে।

কারণ পাসওয়ার্ড লম্বা হলেই যে আপনার অ্যাকাউন্টটি হ্যাক হবে না এরকম তা কিন্তু নয়, আপনার পাসওয়ার্ডটি কাজে লম্বা হতে হবে।

আপনি চাইলে এরকমটাই দিতে পারেন -BangLadEsh@#$%+13 অথবা আপনি চাইলে আরো কঠিন পাসওয়ার্ড দিতে পারেন। এতে আপনার সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত হবে।

পাসওয়ার্ড চেক- আপনি চাইলে বিভিন্ন   টুলস এর সহযোগিতায় আপনার পাসওয়ার্ডটি চেক করতে পারবেন এটা কতটা সিকিউর।

এর জন্য চাইলে আপনি নিচের দেয়া ফ্রী টুলস টি ব্যবহার করতে পারেন, এই ফ্রী টুলস এর দ্বারা আপনি দেখতে পারবেন কত সহজে হ্যাকাররা আপনার পাসওয়ার্ডটি হ্যাক করে নিতে পারে।




কিংবা আপনার পাসওয়ার্ড এর লিমিট যদি বেশি থাকে এবং এটি উপরে দেয়া প্রসেস এর মত হয় তাহলে আপনি দেখতে পারবেন এটা হ্যাক করতে হ্যাকারদের কত সময় লাগবে।


পাসওয়ার্ড কি? বাছুন একটি সর্বোচ্চ নিরাপত্তা মূলক পাসওয়ার্ড|


আর আপনি নির্দ্বিধায় আপনার অ্যাকাউন্টটি ব্যবহার করতে পারবেন। তাইলে আপনি নিচের দেয়া লিঙ্ক থেকে  ব্যবহার করতে পারেন।

Secure Password

এতে ঢোকার পর আপনি শুধুমাত্র আপনার পাসওয়ার্ডটি যখন টাইপ করবেন তখন এর কাজ শুরু হয়ে যাবে।

আর আপনার যে কোন ধরনের অ্যাকাউন্ট নিয়ে আপনি নির্দ্বিধায় থাকতে পারবেন। কারন পাসওয়ার্ড হল আপনার নিরাপত্তা প্রধান মাধ্যম,এটা সুরক্ষিত তো আপনিও সুরক্ষিত।    

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

যখন আমরা ফেসবুকে কোনো ইন্টারেস্টিং স্ট্যাটাস দেখতে পাই তখন আমাদের মধ্যে প্রবল ইচ্ছা জাগে ওই ইন্টারেস্টিং স্ট্যাটাস এর নিচে কমেন্ট করার।

আর আপনি নানানভাবে কমেন্ট করতে পারেন, সেটা আপনি চাইলে লম্বা স্টাইলিশ কমেন্ট, উপদেশমূলক কমেন্ট কিংবা স্টিকার সেন্ড করতে পারেন।

তবে সমস্ত ধরনের কমেন্ট এরমধ্যে স্টিকার দিয়ে কমেন্ট করা এগুলো খুব ইন্টারেস্টিং টাইপের হয়, যার দিকে সবারই কম বেশি নজর থাকে।

আর এরকম ইন্টারেস্টিং ফানি কিংবা ইমোশনাল স্টিকার আমরা যত্রতত্র খুঁজে বেড়াই, কিন্তু মনের মত স্টিকার আমরা কোথাও খুঁজে পাইনা।

আর আপনিও যদি ইন্টারেস্টিং স্টিকার খুঁজতে খুঁজতে বেসামাল হয়ে যান তাহলে আজকের এই পোস্টটি পরিপূর্ণ গাইড আপনার জন্য।


স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|



স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

স্টিকার কালেকশন| নিয়ে নিন সমস্ত মজার স্টিকার কালেকশন ফ্রীতে|

তাহলে উপরের সুন্দর সুন্দর ফানি স্টিকার গুলো আপনি চাইলে ফেসবুকে কমেন্ট বক্সে কিংবা আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

বিশ্বের সমস্ত ফুলের ছবি এবং নামসমুহ| বেচে নিন আপনার পছন্দের ফুল|

বিশ্বের সমস্ত ফুলের ছবি এবং নামসমুহ| বেচে নিন আপনার পছন্দের ফুল|

ফুল হলো প্রকৃতির এক অনন্য উপহার, যেকোনো ধরনের শুভ কাজে ফুল ব্যবহার করা হয় সুবর্ণ প্রতীক হিসেবে।

শুধু তা নয় আপনি পৃথিবীতে এরকম খুব কম মানুষ খুঁজে পাবেন যারা ফুলকে ভালোবাসে না, সবারই প্রিয় একটি জিনিসের নাম হল ফুল।

ভালোবাসা দিবসের শুভেচ্ছা কিংবা প্রিয়জনের যে কোনো খারাপ সময়ে আমরা ফুল দিলেই তার মন ভালো হয়ে যায়, শুধু অন্যরা কেন আপনি নিজেই উপলব্ধি করতে পারবেন ফুলের গুরুত্ব সম্পর্কে।

কিছু কিছু ফুলের ঘ্রাণ এত ভাল হয় যে নিমিষেই আমাদের সমস্ত দুঃখগুলো ভেসে যায় অচিনপুরে, আর আগের  মতোই সুন্দর হয়ে যায় আমাদের মন, সব মিলিয়ে ফুলের পিকের কিংবা বাস্তবিক ফুলের গুরুত্ব অপরিসীম।

আমাদের তো আর সমস্ত ফুল দেখা সম্ভব হয়না, আর এটা সম্ভব হবার কথাই না। তবে আমরা সুন্দর-ফুলের-ছবি দেখে উপভোগ করতে পারি আমাদের পছন্দের ফুলটির বাস্তবিক রূপ।

আর এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনি পৃথিবীর সমস্ত সুন্দর ফুলের ছবি দেখতে পারবেন। যে ফুলগুলো অবশ্যই আপনার মন কাড়বে,

এই পোস্টটিতে আমি কিছু ফুল বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে কালেক্ট করেছি, এবং এই সুন্দর ফুলগুলো ছবি আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।

যেহেতু সমস্ত ফুলকে একসাথে তুলে ধরা সম্ভব নয় তাই আমি কিছু ওয়েবসাইটের লিঙ্ক নিচে দিয়ে দেব যেখান থেকে আপনি আপনার মনের মত পছন্দের কোনটি বেছে নিতে পারবেন।

বেশিভাগ ফুলের ছবি আমাদের অপরিচিত হওয়ার কারণে আমরা বুঝে উঠতে পারিনা যে ফুলগুলো আসলে কি কি ধরনের ফুল?

আমি চেষ্টা করেছি সমস্ত সুন্দর ফুল গুলোর নাম মেনশন করার, যাতে করে আপনি সহজেই চিহ্নিত করতে পারবেন।

তাছাড়া ফুলগুলো কোয়ালিটি খুব ভালো হওয়ার কারণে আপনি চাইলে এগুলো যে কাউকে শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে দিতে পারেন।

কারণ প্রকৃতির অনন্য উপহার ফুলকে সবাই ভালবাসে।

তাহলে নিচের থেকে আপনার পছন্দের ফুলটি কালেক্ট করেন!










 আরো ফুলের ছবি কালেকশন করুন নিচের লিঙ্ক থেকে-


FreePik Flowers

PeXels

Shutterstock

Pixabay

Istockphoto

উপরের দেয়া লিংকগুলো মধ্যে আপনি কয়েক কোটি ফুলের ছবি পাবেন, সমস্ত ছবিগুলো এইচডি কোয়ালিটি হওয়ায় এগুলো আপনার অবশ্যই ভালো লাগবে।

উপরে দেয়া লিঙ্ক এবং পিকচারগুলো আপনি চাইলে যেকোনো সময় ডাউনলোড করে আপনার প্রিয়জনকে শুভেচ্ছা জানাতে পারেন।

আপনার পছন্দের ভিডিও গান, মুভি, কার্টুন ডাউনলোড করুন এখান থেকে|

আপনার পছন্দের ভিডিও গান, মুভি, কার্টুন ডাউনলোড করুন এখান থেকে|

অডিও জিনিসগুলো থেকে ভিডিও কে আমরা খুব বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকি, আর এই ভিডিও দেখার মাধ্যমে আমরা আমাদের খারাপ সময়ে খুব ভালো একটা সাপোর্ট পেয়ে থাকি।

যখনই আমাদের খুব খারাপ সময় যায় তখন আমরা বিভিন্ন ধরনের ভিডিও দেখে এই সময়টাকে পরিবর্তন করার চেষ্টা করি,

কারণ বিভিন্ন ধরনের ভিডিও ক্যাটাগরি থাকার কারণে আমাদের ভিডিওর প্রতি খুব বেশি একটা আকর্ষণ আছে, 

আপনি চাইলে ভিডিও গান ভিডিও মুভি ভিডিও লাইভ স্ট্রিমিং ভিডিও গেমস সহজে কোন কিছুই ইনজয় করতে পারেন।

ভিডিওটি উপভোগ করার জন্য আমাদের নানা ধরনের ওয়েবসাইট কিংবা টুলস অথবা অ্যাপস এর দরকার হয়, যার সবকিছুই আপনি এখান থেকে পেয়ে যাবেন।

কারণ একেক ধরনের ভিডিও দেখতে হলে আমাদের ভিন্ন ভিন্ন ধরনের সাইটের সহযোগিতা নিতে হয়, ফলে আমরা তা করতে সক্ষম হয়।

আর আজকের এই পোষ্টটির মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিডিও ডাউনলোড করার জন্য একটি পরিপূর্ণ গাইড পেয়ে যাবেন, যাতে করে আপনাকে আর কখনো ভিডিও ডাউনলোড করতে ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হবে না।


 মুভি ভিডিও ডাউনলোড


YouTube

আপনারা হয়তো ইউটিউব সম্পর্কে খুব বেশি একটি ধারণা রাখেন, কারণ বর্তমানে আমাদের যেকোনো সমস্যার সমাধানের জন্য ইউটিউব একটি যুগান্তকারী আবিষ্কার।

আপনি যখনই ইউটিউবে ঢুকে সার্চ বারে কোন মুভির নাম টাইপ করবেন তখনই এই মুভিটি যদি রিলিজ হয়ে যায় তাহলে আপনি পেয়ে যাবেন।

Archive. Org

আপনি যদি মুভি ভালোবেসে থাকেন এবং এই মুভিগুলো ডাউনলোড করার জন্য কিংবা দেখার জন্য কোন সাইট খুঁজে থাকেন তাহলে এই সাইট আপনার জন্য উপযুক্ত।

আপনি এখানে প্রায় কয়েক হাজার ধরনের  মুভি পেয়ে যাবেন যা আপনি উপভোগ করতে পারবেন আপনার অবসর সময়ে।

TCM

এই সাইটটি পুরোপুরি নতুন ধরনের মুভিতে ভরপুর, আর আপনি চাইলে এখানে প্রায় হাজারখানেক মুভি উপভোগ করতে পারবেন ফ্রিতে।

এই সাইটটি মুভি দেখার জন্য তৈরি করা হয়েছে, সাইটটিতে আপনি নতুন পুরানো যেকোনো ধরনের মুভি উপভোগ করতে পারবেন।

আপনার পছন্দের ভিডিও গান, মুভি, কার্টুন ডাউনলোড করুন এখান থেকে|

এছাড়া তাদের অফিশিয়াল অ্যাপস ডাউনলোড করার মাধ্যমে আপনি মুভি উপভোগ করতে পারবেন আগের চেয়ে আরো সহজে।

আর উপরের এই তিনটি সাইট থেকে আপনি চাইলে লিগালি যেকোনো ধরনের মুভি দেখতে পারবেন, এই সাইট গুলো সম্পূর্ণ বৈধ।

এই সাইটে মুভি দেখার জন্য আপনাকে কোন ধরনের ভোগান্তির মধ্যে শামিল হতে হবে না, এবং কোন একাউন্ট খুলতে হবে না আপনি ফ্রিতে মুভি ভিডিও দেখতে পারবেন।


 কার্টুন ভিডিও ডাউনলোড-


আপনি আপনার বাচ্চাদেরকে ভালো ইন্টারটেইনমেন্ট দেওয়ার জন্য কার্টুন ভিডিও কে বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকেন।

তাছাড়া আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা মধ্যবয়সী হওয়া সত্বেও কিংবা বৃদ্ধ বয়সে কার্টুন ভিডিও দেখাতে বেশি প্রাধান্য দেয়।

আর এই কার্টুন ভিডিও দেখা কিংবা ডাউনলোড করার জন্য আমাদের বিভিন্ন ধরনের সাইটে সহযোগিতা নিতে হয়। তবে অনেকেই মনে করেন যে ইউটিউব শুধুমাত্র কার্টুন দেখার স্থান।

অনেকে ইউটিউবে কার্টুন দেখেন কিন্তু প্রতিনিয়ত আগের কার্টুন গুলোই তাদের দেখতে হয়, কারণ ইউটিউবে টিভি Show দেখানো হয়।

কিন্তু নিচের দেয়া সাইটগুলো মাধ্যমে আপনি সহজেই নতুন নতুন কার্টুন ভিডিও দেখতে পারবেন,চাইলে ডাউনলোড করতে পারবেন।

Boomeranghq

Cartoonson

Cartoonnetwork

Pokemon

 

 ভিডিও গান


বর্তমানে আপনি গান প্রেমিক মানুষকে খুব বেশি সংখ্যাক খুঁজে পাবেন, আমাদের সুখে কিংবা দুঃখে যখন আমাদের প্রচুর যন্ত্রণা কিংবা ভালোবাসার ছড়াছড়ি তখনই আমরা ভিডিও গান উপভোগ করি।

যাতে করে আমরা আমাদের জীবনটা কে আরো বেশি উপভোগ করতে পারি, ভিডিও গান ডাউনলোড করতে আমাদের অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

কারণ ভিডিও গান ডাউনলোড করার মত ইউনিট সাইট ওয়েব জগতে অনেক কম আছে, যার ফলে আপনি আপনার পছন্দমত সাইটে খুঁজে পান না।

এই পোস্টটিতে আমি ভিডিও গান ডাউনলোড করার কিছু সাইট এবং অ্যাপসের লিঙ্ক দেব, যেগুলো থেকে আপনি সহজেই আপনার পছন্দের গানটি কে বেছে নিতে পারবেন


 ভিডিও গান ডাউনলোডের সাইট-


Hungama

এই সাইটটি থেকে আপনি চাইলে হিন্দি ইংরেজি বাংলা যেকোনো ধরনের ভিডিও গান সহজেই উপভোগ করতে পারবেন।

সাইটটি পুরোপুরি ইউনিক গানগুলোতে ভরপুর, তবে এই সাইটটির যেমন ভালো বৈশিষ্ট্য আছে তেমনি কিছু খারাপ বৈশিষ্ট্য আছে।

আপনি যখনই এই সাইটটিতে কোন ভিডিও ওপেন করবেন তখনি একটি লম্বা অ্যাডভার্টাইজমেন্ট আপনি দেখতে পারবেন। আর এটা স্কিপ করলে আপনি আপনার ভিডিওতে দেখতে পাবেন।

এভাবে আপনি যতগুলো ভিডিও দেখতে চাইবেন কতগুলো অ্যাডভার্টাইজমেন্ট স্কিপ করতে হবে আর দেখতে হবে। তবে ভিডিও কোয়ালিটি অনেক ভালো।

Gaana

বর্তমানে যে কোন গান ডাউনলোড এবং দেখার জন্য বিশ্বের মধ্যে সেরা কোন সাইট থাকলে এগুলোর মধ্যে সেরা পাঁচে এই সাইটটি থাকবে।

এই সাইট থেকে আপনি কোন ধরনের ঝামেলার সম্মুখীন না হয় ডাইরেক্টলি আপনার পছন্দের ভিডিওটি ওপেন করতে পারবেন।

এবং সাইটের লোডিং স্পীড অনেক কাস্টমার কারণে সকল ধরনের ব্যবহারকারীর কাছে সাইটটির জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।


আপনার পছন্দের ভিডিও গান, মুভি, কার্টুন ডাউনলোড করুন এখান থেকে|

এছাড়াও আপনি চাইলে তাদের অফিশিয়াল অ্যাপস ডাউনলোড করলে ভিডিওগুলো উপভোগ এবং ডাউনলোড করতে পারবেন আরো সহজে।

Vidpaw

ভারতের জনপ্রিয় এবং সারা বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় T-Series এর সমস্ত ভিডিওগুলো এইচডি কোয়ালিটি ডাউনলোড করতে পারবেন।

শুধু তাই নয় আপনি চাইলে তাদের সাহায্য করে আপনার পছন্দের ভিডিওটির লিংক দিয়ে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন আপনার ভিডিওটি।

Y2mate

 ইউটিউব থেকে আপনার পছন্দের ভিডিওটি যদি আপনার গ্যালারিতে আনতে সক্ষম না হন, তাহলে এই সাইটে সহযোগিতা নিতে পারেন।

তাছাড়া এই সাইটে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট ঝামেলা খুবই কম।


আপনার পছন্দের ভিডিও গান, মুভি, কার্টুন ডাউনলোড করুন এখান থেকে|


আর তাহলে উপরের দেয়া সাইট গুলোর সাহায্যে আপনি খুব সহজেই ভিডিও গান ডাউনলোড করতে পারবেন।

তাহলে আজকে এই পর্যন্ত, অসংখ্য ধন্যবাদ সাথে থাকার জন্য।